• ঢাকা
  • |
  • শুক্রবার ৭ই আষাঢ় ১৪৩১ সকাল ০৯:৪০:২৩ (21-Jun-2024)
  • - ৩৩° সে:

রোহিঙ্গা নেতা মুহিবুল্লাহ হত্যায় ২৯ আসামির বিরুদ্ধে চার্জগঠন


বুধবার ১৪ই সেপ্টেম্বর ২০২২ রাত ১১:৫৭



রোহিঙ্গা নেতা মুহিবুল্লাহ হত্যায় ২৯ আসামির বিরুদ্ধে চার্জগঠন

রোহিঙ্গা নেতা মুহিবুল্লাহ হত্যায় ২৯ আসামির বিরুদ্ধে চার্জগঠন

রোহিঙ্গা নেতা মুহিবুল্লাহ হত্যা মামলায় ২৯ আসামির বিরুদ্ধে চার্জগঠন করেছেন আদালতে। রোববার (১১ সেপ্টেম্বর) দুপুরে জেলা ও দায়রা জজ মোহাম্মদ ইসমাইল চার্জ গঠন করেন।

অভিযোগপত্রে ১ নম্বর আসামি করা হয়েছে আরসা নেতা ও রোহিঙ্গা মোহাম্মদ ছলিমকে। তিনি উখিয়ার কুতুপালং আশ্রয় শিবিরের নুর বশরের ছেলে। এরপর যথাক্রমে আছেন একই ক্যাম্পের শওকত উল্লাহ, মোহাম্মদ সালাম, জিয়াউর রহমান, মো. ইলিয়াছ, মো. আজিজুল হক, মোর্শেদ প্রকাশ মুর্শিদ, নুর মোহাম্মদ, আনাস, নজিম উদ্দিন, আবুল কালাম প্রকাশ আবু, হামিদ হোসেন, সিরাজুল মোস্তফা ওরফে সিরাজুল্লাহ ওরফে সিরাজ, মৌলভী মো. জকারিয়া, খাইরুল আমিন, মাস্টার আবদুর রহিম ওরফে রকিম, জাহিদ হোসেন ওরফে লালু, ফয়েজ উল্লাহ, ছমির উদ্দিন ওরফে ছমি উদ্দিন ওরফে নুর কামাল, সালেহ আহমদ, মোজাম্মেল ওরফে লাল বদিয়া, তোফাইল, মাস্টার শফি আলম, আবদুস সালাম ওরফে জাকের মুরব্বি, জকির, হাফেজ আয়াছ, মাস্টার কাশিম, মাস্টার শুক্কুর আলম ও মোস্তফা কামাল।

রাষ্ট্রপক্ষের আইনজীবী ফরিদুল আলম, চার্জ গঠনের সময় আদালতে ১৫ আসামি উপস্থিত ছিলেন। দ্রুত সময়ের মধ্যে সাক্ষ্য সম্পন্ন করতে সাক্ষীদের সমন জারি করা হবে।

এর আগে ২০২১ সালে ২৯ সেপ্টেম্বর রাতে উখিয়ার লাম্বাশিয়া আশ্রয়শিবিরের ডি ব্লকের ‘আরাকান রোহিঙ্গা সোসাইটি ফর পিস অ্যান্ড হিউম্যান রাইটস’ (এআরএসপিএইচ) সংগঠনের কার্যালয়ে বন্দুকধারীদের গুলিতে নিহত হন মুহিবুল্লাহ। তিনি ওই সংগঠনের চেয়ারম্যান ছিলেন। হামলার জন্য মিয়ানমারের সশস্ত্র গোষ্ঠী ‘আরাকান স্যালভেশন আর্মির’ (আরসা) কয়েকজন অস্ত্রধারীর নাম প্রচার করা হয়।

পরদিন ৩০ সেপ্টেম্বর মুহিবুল্লাহর ছোট ভাই হাবিবুল্লাহ বাদী হয়ে অজ্ঞাতনামা আসামিদের বিরুদ্ধে উখিয়া থানায় হত্যা মামলা করেন। মামলার তদন্ত করেন উখিয়া থানার পরিদর্শক (তদন্ত) গাজী সালাহ উদ্দিন। দীর্ঘ তদন্ত শেষে ১৩ জুন তিনি ২৯ জন আসামির বিরুদ্ধে আদালতে অভিযোগপত্র দাখিল করেন।

মন্তব্য করুনঃ


সর্বশেষ সংবাদ