• ঢাকা
  • |
  • রবিবার ১৩ই ফাল্গুন ১৪৩০ বিকাল ০৩:১৭:৪৮ (25-Feb-2024)
  • - ৩৩° সে:

ওয়ান্টেড লিস্টে শাকিব খান, খুঁজে দিলেই লাখ টাকা পুরস্কার!

বিনোদন ডেস্ক: প্রথম বাংলাদেশি অভিনেতা হিসেবে প্যান ইন্ডিয়ান সিনেমা করছেন ঢালিউড কিং শাকিব খান। এ সিনেমায় শাকিবের বিপরীতে অভিনয় করছেন বলিউডের সোনাল চৌহান। সিনেমাটি নির্মাণ করছেন বাংলাদেশি নির্মাতা অনন্য মামুন। কিছু দিন আগেই ‘দরদ’ সিনেমা ফাস্ট লুক প্রকাশ্যে এসেছে। যেখানে শাকিব খানকে দেখা গেছে এলোমেলো চুলে, চোখেমুখে প্রতিশোধের ছাপ স্পষ্ট। রহস্যময় চোখে তীক্ষ্ণ দৃষ্টিতে তাকিয়ে আছেন তিনি। এদিকে শনিবার (২৪ ফেব্রুয়ারি) দুপুরে নিজের ভেরিফায়েড ফেসবুকে একটি ছবি পোস্ট করেছেন নির্মাতা অনন্য মামুন। নির্মাতার পোস্ট করা ছবিতে দেখা যায়, শাকিব খানের একটি স্কেচ ছবি। এই ছবির উপরর অংশে লেখা ওয়ান্টেড: মৃত কিংবা জীবিত। আর নিচে লেখা হয়েছে নাম ‘দুলু’। যাকে ধরিয়ে দিতে পারলে এক লাখ টাকা পুরস্কার দেয়া হবে। ক্যাপশনে তিনি লেখেন, ‘গ্যারান্টি দিয়ে বলতে পারি, আগে কোনো বাংলাদেশি নায়ক, নায়িকা, গায়ক, গায়িকা, অডিয়েন্স, পরিচালক, প্রযোজক ভাবেও নাই যে বাংলা সিনেমার কোনো প্রমো এই বিখ্যাত বুর্জ খলিফায় দেখানো যেতে পারে। এটা স্বপ্ন ছিল সবার কাছে। আর শাকিব খানকে দিয়েই বাস্তবে পরিণত হচ্ছে। তিন মিনিটের জন্য বুর্জ খলিফা হবে ‘দরদ’র জন্য। দেখানো হবে পাঁচ ভাষার প্রোমো! এটা দিয়ে শুরু মধ্যপ্রাচ্যে বাংলা সিনেমার নতুন করে ব্যবসায়িক যাত্রা।’ এর আগে গত ১৪ ফেব্রুয়ারি নির্মাতা জানিয়েছেন, ছবির প্রথম টিজার প্রকাশ করবেন বুর্জ খলিফায়। যা এর আগে কোনো বাংলাদেশি সিনেমার ক্ষেত্রে হয়নি। নির্মাতা আরও জানিয়েছেন, ‘দরদ’ সিনেমার রিলিজ ডেট যেকোনো সময় আসতে পারে। এছাড়া এরইমধ্যে আমরা সিনেমাটি একটি ওটিটি প্ল্যাটফর্মে বিক্রি করে দিয়েছি। এর আগে এ সিনেমা প্রসঙ্গে শাকিব খান বলেন, ‘দরদ’ সিনেমাটির সবচেয়ে শক্তিশালী জায়গা হলো এর গল্প। একজন সাইকোপ্যাথের প্রেমের গল্প এটি। সাইকো থ্রিলার এবং রোমান্টিক অ্যাকশন ধাঁচের গল্পে নির্মিত ‘দরদ’ সিনেমা। এ সিনেমায় আরও দেখা যাবে পায়েল সরকার, রাজেশ শর্মা, মিশা সওদাগর, দেব চন্দ্রিমা, লুৎফুর রহমান জর্জ, ইমতু, এলিনা শাম্মী, রিও প্রমুখকে। এটি বাংলার পাশাপাশি মুক্তি পাবে হিন্দি, তামিল, তেলুগু, মালয়ালাম ও কন্নড় ভাষায়। ‘দরদ’-এ বাংলাদেশের পাশাপাশি সহপ্রযোজনায় থাকছে ভারতের প্রযোজনা সংস্থা এস কে মুভিজ ও মুম্বাইয়ের ‘ওয়ান ওয়ার্ল্ড মুভিজ’।