৬১ বছরের ম্যাডোনা প্রেম করছেন ২৫ বছরের যুবকের সঙ্গে

১৯৭৭ সালে ক্যারিয়ার শুরু করেন মার্কিন পপ তারকা ম্যাডোনা। দুই বছর পর শোনা যায়, ড্যান গিলোরির সঙ্গে প্রেম চলছে তাঁর। ড্যান গিলোরি থেকে শুরু করে তাঁর প্রেমিকের তালিকাটা কিন্তু বেশ লম্বা। সেই তালিকায় আছে মার্কিন গ্রাফিতি শিল্পী জিন-মিশেল বাসকুয়েট, জন এফ কেনেডি জুনিয়র, মাইকেল জ্যাকসন, ভ্যানিলা আইস, জন বেনিটেজ, শন পেন, ওয়ারেন বেটি, টনি ওয়ার্ড, কার্লোস লিওন, অ্যান্ডি বার্ড, গাই রিচি, জিসাস লুজ, ব্রাহিম জাইবাত, কেভিন স্যামপায়ো…

 

প্রেমিকদের এই তালিকার শেষ কোথায়? সেই প্রশ্নের জবাব ম্যাডোনা নিজেও জানেন না। তবে তালিকায় সম্প্রতি যুক্ত হলেন আহমালিক উইলিয়ামস। ২৫ বছর বয়সী এই পুরুষের প্রেমে মজেছেন ৬১ বছর বয়সী ম্যাডোনা। ভালোবাসার যে কোনো বয়স নেই, আবার সেই প্রমাণ দিলেন ম্যাডোনা। পেজ সিক্স ও টিএমজেডের প্রতিবেদন থেকে জানা গেছে, গত বছর ডিসেম্বরে ম্যাডোনা আহমালিকের মা–বাবাকে নৈশভোজে আমন্ত্রণ জানান। আর সেখানেই তাঁদের ছেলের প্রতি নিজের ভালোবাসার কথা জানান ম্যাডোনা।

 

উইলিয়ামসের বাবা ড্রিউ জানিয়েছেন, তাঁর বা তাঁর স্ত্রীর এ ব্যাপারে কোনো আপত্তি নেই। ম্যাডোনা যেমন তাঁর সন্তানের চেয়ে বয়সে বড়, তাঁর স্ত্রী আবার তাঁর চেয়ে বয়সে ছোট। এমনটা হতেই পারে। এগুলো কোনো আপত্তির বিষয় নয়। ম্যাডোনা তাঁর ছেলের চেয়ে ৩৬ বছরের বড় হলে কী হবে, এই সম্পর্ক নিয়ে খুবই খুশি এই মা–বাবা। ড্রিউ বলেছেন, ‘ভালোবাসার কোনো বয়স নেই। আমার সন্তানের সম্পর্ক নিয়ে আমি খুশি। আর ম্যাডোনাও এই সম্পর্কের ব্যাপারে সিরিয়াস।’

 

বেস্ট সেলিং নারী রেকর্ডিং শিল্পী হিসেবে গিনেস বুকে নাম রয়েছে ম্যাডোনার। তাঁর গাওয়া ৪৬টি গান ইউকে চার্টের সেরা পাঁচে স্থান পেয়েছে। ম্যাডোনার সবচেয়ে জনপ্রিয় গানগুলোর মধ্যে রয়েছে ‘লাইক আ ভার্জিন’, ‘হ্যাং আপ’, ‘হলিডে’, ‘লা ইসলা বোনিতা’, ‘লাইক আ প্রেয়ার’ ইত্যাদি।