হুমকি মোকাবিলায় সেনাসদস্যদের প্রস্তুত থাকার আহ্বান

যে কোনো ধরনের হুমকি মোকাবিলায় সেনাসদস্যদের প্রস্তুত থাকতে বলেছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।  

বরিশালে শেখ হাসিনা সেনানিবাসে নতুন ৩টি ব্রিগেড ও ৫টি ইউনিটের পতাকা উত্তোলন অনুষ্ঠানে গণভবন থেকে ভার্চুয়ালি যোগ দিয়ে একথা বলেন প্রধানমন্ত্রী। এছাড়া, আসন্ন শীতে আবারো করোনার ধাক্কা আসতে পারে উল্লেখ করে সেনা সদস্যদের সজাগ ও সতর্ক থাকার পরামর্শ দেন তিনি।

বরিশালে শেখ হাসিনা সেনানিবাসে গণভবন থেকে ভার্চুয়ালি যোগ দিয়ে প্রধানমন্ত্রী নতুন ৩টি ব্রিগেড ও ৫টি ইউনিটের পতাকা উত্তোলন ও প্যারেড অনুষ্ঠান উপভোগ করেন।

নবপ্রতিষ্ঠিত এসব ব্রিগেড সদর ও ইউনিট সমূহ দক্ষিণাঞ্চলের নিরাপত্তা নিশ্চিতের পাশাপাশি জনসাধারণের স্বপ্ন পূরণে বলিষ্ঠ ভুমিকা রাখবে উল্লেখ করে প্রধানমন্ত্রী বলেন, কারও সাথে বৈরিতা নয়, শান্তি চায় বাংলাদেশ। তবে কারও দ্বারা আক্রান্ত হলে মোকাবিলায় সেনাবাহিনীকে প্রস্তুত থাকার নির্দেশ তিনি।

তিনি বলেন, “সেনাবাহিনীর সদস্য হিসেবে দেশের জন্য কাজ করার লক্ষ্যে সর্বপ্রথম দরকার হচ্ছে পেশাদারিত্ব এবং প্রশিক্ষণ। আর এই পেশাদারিত্বের কাঙ্ক্ষিত মান অর্জনের জন্য আপনাদের সকলকে পেশাগতভাবে দক্ষ, সামাজিক ও ধর্মীয় মূল্যবোধে উদ্বুদ্ধ হয়ে সৎ এবং মঙ্গলময় জীবনের অধিকারী হতে হবে।”

প্রধানমন্ত্রী বলেন, দেশের উন্নয়ন, দুর্যোগ ও দুর্বিপাকে সশস্ত্রবাহিনী গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করছে। বিশ্বে বাংলাদেশের ভাবমূর্তি উজ্জ্বল করেছে বাংলাদেশ সেনাবাহিনী। করোনা পরিস্থিতির মধ্যেও বাংলাদেশের অর্থনৈতিক অবস্থা এখন অনেক মজবুত বলে উল্লেখ করে শেখ হাসিনা।

দেশের দক্ষিণাঞ্চলের নিরাপত্তা নিশ্চিত করতে ও সেনাবাহিনীর সক্ষমতা বাড়াতে বরিশাল ও পটুয়াখালী জেলার সীমান্ত এলাকায় পায়রা নদীর তীরে প্রতিষ্ঠা হয় শেখ হাসিনা সেনানিবাস। এই সেনানিবাসের আয়তন ১ হাজার ৫’শ ৩২ একর।  প্রতিরক্ষা মন্ত্রণালয়ের অধীনে এই প্রকল্প ২০২১ সালের জুন মাসে শেষ হওয়ার কথা রয়েছে।