হালুয়াঘাটে যথাযোগ্য মর্যাদায় যুদ্ধ দিবস পালিত

এম,এ মালেক,হালুয়াঘাট ঃ ময়মনসিংহের হালুয়াঘাটে যথাযোগ্য মর্যাদায় মুক্ত দিবস পালন করা হয়েছে। গতকাল শনিবার দিবসটি উপলক্ষে বীর মুক্তিযোদ্ধা ও উপজেলা আওয়ামীলীগের ভারপ্রাপ্ত সভাপতি কবিরুল ইসলাম বেগ’র সভাপতিত্বে সকালে জাতীয় পতাকা উত্তোলনের মধ্যেদিয়ে মুক্তিযোদ্ধা সংসদ ও সন্তান কমান্ড এর আয়োজনে উপজেলার মুক্তিযোদ্ধা কমপ্লেক্স’র প্রাঙ্গন হতে একটি র‌্যালী পৌর শহরের প্রধান প্রধান সড়ক প্রদক্ষিন শেষে মুক্তিযোদ্ধা স্মৃতিস্তম্ভে পুস্পস্তবক অর্পন ও সংক্ষিপ্ত আলোচনায় মিলিত হয়।
উল্লেখ্য, ১৯৭১ সালের এই দিনে পাক হানাদারদের বিরুদ্ধে মুক্তিবাহিনী,ছাত্র,কৃষক,ও আমজনতা সশস্ত্র যুদ্ধে অবতীর্ণ হয়ে এই অঞ্চল টিকে শক্র মুক্ত করে স্বাধীন করে। মুক্তিযোদ্ধা, মুক্তিকামী ও সাধারণ মানুষ মিছিল বের করে আনন্দ-উল্লাসে মেতে ওঠে। এর পর ‘জয় বাংলা’ ¯ে¬াগান তুলে মুক্তিবাহিনীর সদস্যরা মাতিয়ে তুলে সীমান্তবর্তী উপজেলা হালুয়াঘাট। মুক্তিযুদ্ধকালীন সময়ে ভারতের মেঘালয়বর্তী ময়মনসিংহের গারো পাহাড়ের উপজেলা হালুয়াঘাটে আওয়ামী লীগের নেতৃত্বে গড়ে উঠে সর্বদলীয় সংগ্রাম পরিষদ। এছাড়া, অঞ্চল ভিক্তিক আন্দোলন সংগ্রাম ও পরিচালিত হয়। ৭ ডিসেম্বর হালুয়াঘাটের আঞ্চলিক সংগঠক প্রায়াত কুদ্রত উল্লাহ মন্ডল উপজেলা ভূমি অফিসের সামনে হাজার হাজার মানুষের উপস্থিতিতে লাল-সবুজের জাতীয় পতাকা উত্তোলন করেন। এ সময় মুক্তিযোদ্ধা -জনতা মিলে ‘জয় বাংলা’ স্বোগানে পুরো এলাকা প্রকম্পিত করে তোলে। শক্র মুক্ত হয় হালুয়াঘাট। এরপর থেকেই ৭ ডিসেম্বর যথাযোগ্য মর্যাদায় হালুয়াঘাটে বিভিন্ন কর্মসূচির মধ্যে দিয়ে দিবসটি পালন করা হয়।র‌্যালী ও আলোচনায় অংশগ্রহন করেন উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা রেজাউল করিম,উপজেলা আওয়ামীলীগের ভারপ্রাপ্ত সাধারন সম্পাদক অধ্যক্ষ্য আব্দুর রশিদ,সাংগঠনিক সম্পাদক আওলাদ হোসেন, যুবলীগের আহবায়ক নাজিমউদ্দিন সাবেক মুক্তিযোদ্ধা কমান্ডার আব্দুল গনি,আমান উল্লাহ,মুক্তিযোদ্ধা আব্দুর রাজ্জাক সহ শ্রমীক লীগ, মুক্তিযোদ্ধা ও মুক্তিযোদ্ধার সন্তানগণ সহ আরো অনেকেই।