সড়ক দূর্ঘটনায় যশোরের শার্শার দু’খালাতো ভাইয়ের মৃত্যু

জসিম উদ্দিন, বেনাপোল প্রতিনিধি: বাসের চাকায় পিষ্ট হয়ে যশোরের শার্শা উপজেলার দুুই যুবকের মৃত্যু হয়েছে। সম্পর্কে তারা একে অপরের খালাতো ভাই। এসময় গুরুতর আহত হয়েছেন এক মোটরসাইকেল চালক। সোমবার রাত ১১টায় যশোর-বেনাপোল মহাসড়কের নাভারণ কলোনী মোড় নামক স্থানে এই দূর্ঘটনাটি ঘটে।

মৃত দু’খালাতো ভাই যশোরের শার্শা উপজেলার গয়ড়া গ্রামের লোকমান হোসেনের ছেলে বিপুল (২০) ও বেনাপোল সীমান্তের পুটখালী গ্রামের রেজাউল ইসলামের ছেলে মুরাদ হোসেন (২৩)। তারা উভয়ই ওয়াইফাই কেবল অপারেটর হিসাবে কাজ করত এবং দু’জনই ছোট বয়স থেকে কাজির বেড় গ্রামের নানা গোলাম নবীর বাড়িতে বসবাস করতো।

নিহতের পরিবার সূত্রে জানা যায়, বিপুল ও মুরাদ ওয়াইফাই কেবলের কাজে ভাড়ায় মোটর সাইকেলযোগে ঝিকরগাছা থেকে কাজ সেরে বাসায় ফিরছিল। পথিমধ্যে নাভারণ কলোনী মোড় নামক স্থানে আসলে বিপরীত দিক থেকে আসা ঢাকাগামী একটি পরিবহণ তাদেরকে ধাক্কা দেয়। এতে পিছন থেকে বিপুল ও মুরাদ পড়ে গিয়ে পরিবহনের পিছনের চাকায় পিষ্ট হয়ে ঘটনাস্থলেই তাদের মৃত্যু হয়। এঘটনায় মোটরসাইকেল চালক গুরুতর আহত হয়ে যশোর ২৫০ শয্যা হাসপাতালে চিকিৎসা নিচ্ছে।

এদিকে একইসাথে দু’খালাতো ভাইয়ের মৃত্যুতে শোকের ভেঙ্গে পড়েছেন নানা গোলাম নবীসহ মৃতের পরিবার। এঘটনায় এলাকায় শোকের ছাঁয়া নেমে এসেছে।

নাভারণ হাইওয়ে থানার এসআই টিটো দেবনাথ সড়ক দূর্ঘটনায় দু’জন মৃত ও একজন আহতের কথা নিশ্চিত করে বলেন, ঘটনা ঘটার ২০ মিনিট পর আমরা জানতে পেরেছি। এসময় চারিদিকে অন্ধকার থাকায় আমরা কোন কিছু নিশ্চিত করতে পারেনি। সিসি ক্যামেরা দ্বারা গাড়ী সনাক্তকরণ বিষয়ে জানতে চাইলে তিনি আরো বলেন, আমাদের সিসি ক্যামেরা অনেক আগে থেকেই নষ্ট হয়ে পড়ে আছে। আমরা চেষ্টা চালাচ্ছি গাড়ী সনাক্ত করার জন্য।