স্তন ক্যানসার ও খাদ্যাভ্যাস

১৯৬০ সাল থেকেই বিজ্ঞানীরা খাদ্যদ্রব্য, পুষ্টি উপাদান, ভিটামিন, খনিজ দ্রব্য, খাবারের রং ইত্যাদি নিয়ে গবেষণা করে আসছেন। অনেক পরীক্ষা–নিরীক্ষার পর এটা স্পষ্ট হয়ে উঠেছে যে খাদ্যের অভ্যাস ও ক্যানসার—এই দুইয়ের মধ্যে বেশ ঘনিষ্ঠ সম্পর্ক রয়েছে। কী রকম খাবার বেশি খেলে কী ধরনের ক্যানসার বেশি হয় আবার কোন খাবার না খেলে বা কম খেলে কোন ক্যানসার কম হয়, বিজ্ঞানীদের কাছে তা দিন দিন পরিষ্কার হয়ে উঠেছে। বিজ্ঞানীরা এখন জোরগলায় বলছেন, সঠিক খাবারদাবার স্তন, অন্ত্র এবং অগ্ন্যাশয় ও যকৃতের ক্যানসার প্রতিরোধ করতে সক্ষম।

ইপিডেমিওলজি–বিষয়ক কিছু জরিপে দেখা যায়, স্তন ক্যানসারের সঙ্গে খাবারের প্রাণিজ মাংস, চর্বি ও  স্থূলতার নিবিড় সম্পর্ক রয়েছে। প্রাণিজ চর্বি, রক্তের এস্ট্রিডিয়ল হরমোনের উচ্চমাত্রা তৈরিতে সহায়তা করে, যা পরবর্তী সময়ে কারসিনোজেন হিসেবে কাজ করে এবং স্তন ক্যানসার সৃষ্টিতে অগ্রণী ভূমিকা পালন করে। বেশি মাত্রায় অ্যালকোহল বা মদ গ্রহণ করলে স্তন ক্যানসারের ঝুঁকি বাড়ে। খাদ্যে ভিটামিন এ এবং ই–এর অভাব ও কম আঁশযুক্ত খাবারের সঙ্গে স্তন ক্যানসারের যোগসূত্র আছে বলে মনে করা হয়।