সৈয়দপুর হতে রংপুর,দিনাজপুর রুটের গন পরিবাহনে মানা হচ্ছেনা স্বাস্থ্যবিধি

সাদিকুল ইসলাম সাদিক, নীলফামারী জেলা প্রতিনিধিঃ সরকারি নির্দেশনা সত্ত্বেও সৈয়দপুর-রংপুর ও সৈয়দপুর- দিনাজপুর রুটে বাস- মিনিবাসে যাত্রী পরিবহনে সামাজিক দূরত্ব মানা হচ্ছে না। অথচ গণ-পরিবহণে সামাজিক দূরত্ব ও স্বাস্থ্য বিধি মেনে চলতে কোন রকম তদারকি নেই সংশ্লিষ্ট বিভাগগুলোর।

এতে করে বৈশ্বিক প্রাণঘাতী করোনা ভাইরাস সংক্রমণের শঙ্কা ক্রমেই বাড়ছে। করোনা ভাইরাসের কারণে প্রায় দুই মাস গণপরিবহণ চলাচল সম্পূর্ণ বন্ধ ছিল। গত ১ জুন থেকে সীমিত পরিসরে বাস-মিনিবাস চলাচলের অনুমতি দেয় সরকার।

যদিও তখন সামাজিক দূরত্ব ও স্বাস্থ্য বিধি মেনে বাস-মিনিবাস চলাচল করতে সরকারি নির্দেশনা জারি করা হয়। সরকারি নির্দেশনায় বলা হয়, বাস-মিনিবাসে আসন সংখ্যার অর্ধেক যাত্রী নিয়ে চলাচল করতে হবে। অর্থাৎ একজন যাত্রীকে বাস-মিনিবাসের দুইটি সিটের (আসন) একটি সিটে বসিয়ে অন্যটি ফাঁকা রাখতে হবে। যাত্রী সাধারণ সামাজিক দূরত্ব ও স্বাস্থ্য সুরক্ষা সামগ্রী ব্যবহার করবেন। বাস-মিনিবাসে আসন সংখ্যার বাইরে দাঁড়িয়ে কোন যাত্রী পরিবহণ করা যাবে না।

তবে ভাড়ার ক্ষেত্রে পূর্বের নির্ধারিত ভাড়ার শতকরা ৬০ ভাগ বেশি দিতে পারবেন। সৈয়দপুর কেন্দ্রীয় বাস টার্মিনাল থেকে সৈয়দপুর-রংপুর রুটে একটি গেটলক বাসে যাত্রী হয়ে এ সত্যতা মিলেছে। এ সময় দেখা যায়, বাস-মিনিবাসগুলোতে সামাজিক দূরত্ব কিংবা স্বাস্থ্য বিধি মানার কোন বালাই নেই। ঠিক আগের মতো বাস-মিনিবাসগুলোতে প্রতিটি আসনে যাত্রী নেওয়া হচ্ছে।

বাস-মিনিবাসগুলোর আসন সংখ্যার বাইরেও দাঁড়িয়ে যাত্রী পরিবহন করা হচ্ছে। কিন্তু যাত্রীদের কাছ থেকে ভাড়া আদায় করা হচ্ছে দ্বিগুন। অর্থাৎ করোনার আগে সৈয়দপুর-রংপুর রুটে বাস-মিনিবাসে ভাড়া নেওয়া হতো ৫০ টাকা। যদিও সরকারি পরিপত্র অনুযায়ী প্রতি কিলোমিটারের ভাড়া এক টাকা ৪২ পয়সা। সে হিসেবে সৈয়দপুর -রংপুর রুটে বাস মিনিবাসে একজনের ভাড়া দাঁড়ায় ৫৬ টাকা আশি পয়সা।

কিন্তু বর্তমানে করোনাকালে প্রতিজন যাত্রীর কাছ থেকে এ ভাড়া আদায় করা হচ্ছে ১০০ টাকা। অপরদিকে সৈয়দপুর-দিনাজপুর রুটে একই অবস্থার দেখা গিয়েছে।