সৈয়দপুরে মিথ্যা অভিযোগের প্রতিবাদে সংবাদ সম্মেলন

সাদিকুল ইসলাম সাদিক, নীলফামারী প্রতিনিধিঃ নীলফামারীর সৈয়দপুরে বাংলাদেশ ছাত্র মৈত্রীর জেলা কমিটির আহবায়ক তৌফিকুল ইসলাম লিমনের বিরুদ্ধে প্রতিবেশির করা সরকারি রাস্তা দখল করে স্থাপনা নির্মাণের অভিযোগ এবং এ সংক্রান্ত সংবাদ প্রকাশের প্রতিবাদে সংবাদ সম্মেলন করা হয়েছে। শুক্রবার (২৯ জানুয়ারী) দুপুরে স্থানীয় এক রেস্টুরেন্টে ওই সংবাদ সম্মেলন করা হয়।

সংবাদ সম্মেলনে লিখিত বক্তব্যে তৌফিকুল ইসলাম বলেন, শহরের নতুনবাবুপাড়া মেধা বিকাশ স্কুল সংলগ্ন এলাকায় আমার বাবা মকবুল হোসেন ৫ শতক জমি সরকারের কাছে লিজ নেয়। সেখানে সরকারি নিয়ম মেনে বসতবাড়ি বানিয়ে পরিবারসহ দীর্ঘ ৩০ বছর যাবৎ বসবাস করছি।

রংপুর বিভাগীয় কমিশনার মহোদয় এর আগে এসে আমার বাড়ি পরিদর্শন করে গেছেন। সে সময় কমিশনার মহোদয় বলেন, মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেছন বাংলাদেশে কেউ গৃহহীন থাকবে না। তাই আপনারাও যারা লিজ নিয়ে সরকারি জমিতে বসবাস করেছেন তারা নিয়মননীতি মেনে বসবাস করুন। আমরা সকল নিয়মনীতি মেনেই সেখানে বসবাস করছি।

কিন্তু ওই একই দাগে ৮ শতক জমি সরকারি হওয়া সত্বেও ময়েন উদ্দীনের ছেলে আব্দুর রাজ্জাক জনৈক ব্যক্তির কাছে কিনে নেয়। তিনি ওই সরকারি জমির ভুয়া কাগজ বানিয়ে রাস্তার জন্য ছেড়ে দেয়া ২ দশমিক ৫ শতক জমি দখল করে সেখানে অবৈধভাবে বহুতল ভবন নির্মাণ করেছেন। রাজ্জাক রাস্তা দখল করে সরাকারি জমিতে অবৈধভাবে বহুতল ভবন নির্মাণ করেছে অথচ আমি আমার বসতবাড়ির সংস্কার কাজ করায় তিনি উল্টো আমার বিরুদ্ধে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা বরাবর মিথ্যে অভিযোগ করেছেন। তিনি আরও বলেন, রাজ্জাক প্রভাব খাটিয়ে আমাকে সেখান থেকে উচ্ছেদের চেস্টা করছে। বাড়ি সংস্কার কাজ করায় রাজ্জাক ও তার স্ত্রী আমার পরিবারের মহিলা সদস্যদের অকথ্য ভাষায় গালিগালাজ করছেন। এমনকি তিনি আমাকে প্রাণে মেরে ফেলারও হুমকি দিচ্ছেন। সংবাদ সম্মেলনে এর প্রতিকার চেয়ে তিনি পুলিশ প্রশাসনসহ সংশ্লিষ্ট কতৃপক্ষের কাছে দাবি জানান।