সৈয়দপুরে টাপেন্টাডল বিক্রির করায় দুই ব্যবসায়ীর কারদন্ড

সাদিকুল ইসলাম সাদিক,  নীলফামারী প্রতিনিধি: নীলফামারীর সৈয়দপুরে মাদকদ্রব্যের তালিকায় নতুন যুক্ত হওয়া টাপেন্টাডল বিক্রির দায়ে দুই মাদক ব্যবসায়ীর ছয় মাসের কারাদন্ড ও প্রত্যেককে তিন হাজার টাকা করে অর্থদন্ড করেছেন ভ্রাম্যমাণ আদালত।

সোমবার সন্ধ্যায় ভ্রাম্যমান আদালতের নির্বাহী ম্যাজিষ্ট্রেট ও সৈয়দপুর উপজেলা সহকারি কমিশনার (ভূমি) মো. রমিজ আলম ওই দন্ডাদেশ দেন। শহরের শেরে বাংলা সড়কস্থ পৌর পাবলিক টয়লেট পরিচালনার আড়ালে সেখানে দীর্ঘদিন ধরে টাপেন্টাডলসহ বিভিন্ন মাদকের বেচাকেনাসহ নিয়মিত মাদকের আড্ডা বসাতো। ঘটনার দিন সাদা পোশাকে পুলিশ গ্রাহক সেজে পাবলিক টায়লেটের কেয়ারটেকার সাধু ইসলামের (৬৫) কাছে টাপেন্টাডল খরিদ করে।

সাথে সাথে থানা পুলিশের উপ-পরিদর্শক মো. খালেদ ফিরোজ নয়ন ও সহকারি উপ- পরিদর্শক নুর আমিনসহ অন্যান্য পুলিশ সদস্যরা সেখানে হাজির হয়। এ সময় মাদক বিক্রেতা ওই পাবলিক টয়লেটের কেয়ারটেকার সাধু ইসলাম এবং মাদক সরবরাহকারী জামিল হোসেনকে (৩২) আটক করে। খবর পেয়ে সৈয়দপুর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মো. নাসিম আহমেদ এবং উপজেলা সহকারি কমিশনার (ভূমি) মো. রমিজ আলম ঘটনাস্থলে উপস্থিত হন।

পরে তাদের উপস্থিতিতে স্থানীয়দের সামনে শহরের মিস্ত্রিপাড়া এলাকার মৃত. ইয়াকুবের পুত্র ওই টয়লেটের কেয়ারটেকার সাধু ইসলাম ও নয়াটোলা এলাকার মৃত বছির উদ্দিনের পুত্র মাদক সরবরাহকারী জামিল হোসেনের পকেট থেকে ১০ পিস করে ২০ পিস টাপেন্টাডল ট্যাবলেট উদ্ধার এবং ট্যাবলেট বিক্রি করার নগদ ১ হাজার ৬০০ টাকা জব্দ করা হয়। এ সময় আটক দুজনই মাদক বেচাকেনার কথা স্বীকার করলে সেখানেই ভ্রাম্যমান আদালত বসানো হয়। পরে আদালতের নির্বাহী ম্যাজিষ্ট্রেট ও উপজেলা সহকারি কমিশনার (ভূমি) মো. রমিজ আলম ওই দুইজনকে ৬ মাস করে কারাদন্ড ও ৩ হাজার টাকা করে জরিমানা করেন।