সেচ্ছায় কৃষকদের ধান কেটে ঘরে তুলে দিচ্ছেন মাধবদী থানা কৃষকলীগ

সুমন পাল, মাধবদী (নরসিংদী) প্রতিনিধিঃ মহামারী করোনায় লকডাউন চলার কারণে একদিকে যেমন শ্রমিক সংকট অপরদিকে কৃষকের অর্থ সংকটও দেখা দিয়েছে। এমন পরিস্থিতিতে এ অবস্থায় সারা দেশের আবাদি জমিতে বোরো মৌসুমে কৃষকদের ধান কাটতে সব ধরণের সহায়তা করতে নেতাকর্মীদের নির্দেশ দিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী জননেত্রী শেখ হাসিনা।
প্রধানমন্ত্রীর আহ্বান ও কেন্দ্রীয় কৃষকলীগের নির্দেশনায় কৃষকদের জমিতে থাকা পাকা ধান কেটে দিচ্ছেন মাধবদী থানা কৃষক লীগের নেতাকর্মীরা। সুখি কৃষক, সুখি দেশ, শেখ হাসিনার বাংলাদেশ। এ স্লোগানে মাধবদী থানা কৃষকলীগের নেতৃত্বে অর্ধশতাধিক নেতাকর্মীরা নুরালাপুর ইউনিয়নের মাঠ থেকে ধান কেটে কৃষকের বাড়ি পৌঁছে দিয়েছে। এসময় অন্যান্যদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন মাধবদী থানা কৃষক লীগের আহবায়ক খায়রুল ইসলাম খান, সদস্য সচিব সুখ রঞ্জন বণিক, সদস্য হাজী ইকবাল হোসেন, সাইফুল ইসলাম ইরান, আবুল কাশেম, দ্বীন ইসলাম, আবু সিদ্দিক, অরবিন্দু বণিক, হৃদয় খান সহ প্রমুখ।
কৃষক শুক্কুর আলী বলেন, করোনার কারণে পরিবহন বন্ধ হওয়ায় দিনমজুরের সংকট দেখা দেওয়ায় মজুরিও বেড়ে গেছে অনেক। আমার ১ বিঘা জমির পাকা ধান মাধবদী থানা কৃষক লীগের নেতাকর্মীরা কেটে দেয়ায় আমার খুব উপকার হয়েছে। মাধবদী থানা কৃষক লীগের আহবায়ক খায়রুল ইসলাম খান বলেন, সারাদেশে চলছে করোনা ভাইরাসের সংক্রমণ। এই সংক্রমণ প্রতিরোধে চলছে লকডাউন। শ্রমিক সংকটের কারণে জেলার কৃষকরা জমির পাকা ধান কাটতে পারছেন না।এজন্য প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ও কেন্দ্রীয় কৃষক লীগের নির্দেশে আমরা ধান কাটা কর্মসূচি গ্রহণ করেছি।
কৃষকদের সুবিধার্থে জমির ধান কাটার এই কার্যক্রম মাধবদী থানা এলাকার প্রতিটি উপজেলায় পর্যায়ক্রমে অব্যাহত থাকবে। যদি কারো এমন সাহায্যের প্রয়োজন হয় আমাদের ফোন করলে আমরা অবশ্যই কৃষকদের পাশে দাঁড়াবো। মাধবদী থানা কৃষক লীগের সদস্য সচিব সুখ রঞ্জন বণিক বলেন, কেন্দ্রীয় কমিটি, জেলা কমিটির নির্দেশ মোতাবেক যাদের ধান কাটার সামর্থ নেই তাদের জমির পাকা ধান কেটে কৃষকের ঘরে তুলে দেওয়ার ব্যবস্থা করব।