সুরেশ্বর দরবার শরীফ রক্ষা বাঁধ পদ্মার ভাঙ্গনের কবলে

খোরশেদ আলম বাবুল, শরীয়তপুর প্রতিনিধি:  পদ্মা নদীর প্রবল স্রোতে জিওব্যাগ ও সিসিব্লক সরে যাওয়ায় ভাঙ্গনের সৃষ্টি হয়ে ঐতিহাসিক সুরেশ্বর দরবার শরীফ রক্ষা বাঁধের প্রায় ৬০ মিটার পদ্মাগর্ভে বিলীন হয়ে গেছে। দরবার শরীফ ও আশ-পাশের বসতবাড়ি নতুন করে ভাঙ্গনের সম্মুখিন হওয়ার সম্ভাবনা দেখা দিয়েছে।

বাড়ীঘর হারানোর ভয়ে ভাঙ্গন আতঙ্কে দিন কাটাচ্ছে এলাকাবাসী। ভাঙ্গন রোধে সিসি ব্লক ও জিওব্যাগ ডাম্পিং করছে শরীয়তপুর পানি উন্নয়ন বোর্ড। শরীয়তপুর পানি উন্নয়ন বোর্ড ও স্থানীয় সুত্রে জানা গেছে, ২০০৭ ও ২০১২ সালে সুরেশ্বর দরবার শরীফ ও আশে পাশে ভাঙ্গন দেখা দিলে পানি উন্নয়ন বোর্ড ৩টি প্যাকেজে ২৩ কোটি ৫০ লক্ষ টাকা ব্যয়ে ভাঙ্গন রোধে ৮৫০ মিটার স্থায়ী রক্ষাবাঁধ নির্মাণ করেন।

চলতি বর্ষা মৌসুমে পদ্মার পানি ও স্রোত বৃদ্ধি পাওয়ার ফলে ওই বাঁধে গত মাসের শেষ সপ্তাহ থেকে দুইটি স্থানে পুনরায় ভাঙ্গন দেখা দেয়। এতে নদীর তলদেশে গর্ত হয়ে ভাঙ্গনের সৃষ্টি হয়ে সুরেশ্বর দরবার শরীফ রক্ষা বাঁধের প্রায় ৬০ মিটার পদ্মায় বিলীন হয়ে যায়। এ রক্ষা বাঁধে ভাঙ্গন শুরু হলে পানি সম্পদ মন্ত্রনালয়ের নির্দেশে শরীয়তপুর পানি উন্নয়ন বোর্ড ভাঙ্গন রোধে ওই স্থানে বুধবার পর্যন্ত প্রায় ৩৬ হাজার জিওব্যাগ ও সাড়ে ৩ হাজার সিসি ব্লক ডাম্পিং করেন।

এখনো ডাম্পিং কাজ চলমান রয়েছে। পানি উন্নয়ন বোর্ড বলছে, আরো ৩০ হাজার জিওব্যাগ ডাম্পিং করা হবে। এ রক্ষা বাঁধে ভাঙ্গন দেখা দেয়ায় দরবার শরীফের পাশ্ববর্তী পদ্মার পাড়ে বসবাসরত প্রকৃতির সাথে যুদ্ধকরে বেচে থাকা মানুষের মধ্যে নতুন করে বাড়ীঘর হারানোর ভয় ও আতঙ্ক বিরাজ করছে। স্থানীয়রা জানিয়েছেন ডাম্পিং করে ভাঙ্গন রোধ করতে না পারলে সুরেশ্বর দরবার শরীফ ও আশে পাশের বহু বাড়ি ঘর ও স্থপনা পদ্মা গর্ভে বিলীন হয়ে যাবে।

তাই পূনরায় স্থায়ী বেড়িবাঁধ নির্মাণের জন্য সরকারের নিকট জোর দাবী জানিয়েছেন তারা। সুরেশ্বর দরবার শরীফের প্রধান মোতওয়াল্লি সৈয়দ শাহ সুফি কামাল নুরী বলেন, গত কয়েক বছর বেড়ি বাঁধের জন্য আমরা শান্তিতে ছিলাম। এ বছর পদ্মার ভাঙ্গনে দরবার শরীফ এলাকায় বেড়িবাঁধের কিছু অংশ বিলীন হয়ে গেছে। আমরা আতঙ্কে আছি। শেষ রক্ষা হবে কিনা জানি না। শরীয়তপুর পানি উন্নয়ন বোর্ডের নির্বাহী প্রকৌশলী এস এম আহসান হাবিব বলেন,

পদ্মা নদীর প্রবল স্রোতে নদীর তলদেশ থেকে জিওব্যাগ ও সিসি ব্লক সরে যাওয়ায় সুরেশ্বর দরবার শরীফ রক্ষা বাধের ৬০ মিটার পদ্মাগর্ভে বিলীন হয়ে গেছে। ভাঙ্গন রোধে ইতোমধ্যে প্রায় ৩৬ হাজার জিওব্যাগ ও সাড়ে ৩ হাজার সিসি ব্লক ডাম্পিং করেছি। ডাম্পিং কাজ চলমান রয়েছে। শুকনো মৌসুমে স্থায়ী বাঁধ নির্মাণে কার্যকর ব্যবস্থা নেয়া হবে।