সুবর্ণচরে পরিবহণ সমিতির নেতাকে হত্যার হুমকি দিলেন মোজাম্মেল চেয়ারম্যান, থানায় জিডি

মো: ইমাম উদ্দিন সুমন, সুবর্ণচর প্রতিনিধি: এবার অনিয়ম এবং দূর্নীতির প্রতিবাদ করায় সুবর্ণচর ট্রাক পিকআপ ও মিনি পিকআপ পরিবহণ মালিক সমবায় সমিতি লিঃ এর সাধারণ সম্পাদক মোঃ নাজিম উদ্দিনকে হত্যার হুমকি দিলেন সুবর্ণচর উপজেলার ২ নং চরবাটা ইউনিয়নের চেয়ারম্যান ধর্ষণ, নারী নির্যাতনসহ একাধিক মামলার আসামী মোজাম্মেল হোসেন মোজাম।

ভুক্তভোগি নাজিম উদ্দিন চরজব্বার থানায় একটি সাধারণ ডায়েরি করেন জিডি নং ৫৯৬/ তারিখ ১৫/০৭/২০। নাজিম উদ্দিন অভিযোগ করে বলেন, “মোজাম্মেল চেয়ারম্যান সুবর্ণচর ট্রাক-পিকআপ ও মিনি পিকআপ পরিবহন মালিক সমবায় সমিতি লিঃ এর সাবেক সভাপতি ছিলেন, ২০১৯ সালে সমিতির নির্বাচনে তিনি হেরে যান নির্বাচনে মোঃ ইব্রাহিম খলিল সভাপতি এবং মোঃ নাজিম উদ্দিন সাধারন সম্পাদক নির্বাচিত হন।

কিন্তু তিনি সমিতির দায়ীত্বরত সদস্যদের অগোচরে নিজেকে সভাপতি পরিচয় দিয়ে নিজের নামে একাধিক চালান বই বানিয়ে বহিরাগত ট্রাক পিকআপ ভাড়া দিয়ে বিপুল অর্থ হাতিয়ে নিচ্ছেন। তার এমন জালিয়াতির ফলে সমিতির সকল ট্রাক ও মিনি পিকআপ গুলো ভাড়া না পেয়ে হতাশ হয়ে পড়েন মালিকগন এতে পরিবহণ মালিকরা বিষয়টি না বুঝে বর্তমান কিমিটিকে দোষারোপ করে সম্প্রতি একজন পরিবহন মালিক মোঃ আবু তাহের মেম্বার বর্তমান কমিটির বিরুদ্ধে চরজব্বার থানায় একটি অভিযোগ দায়ের করে।

১৫ জুলাই বুধবার চরজব্বার থানায় অফিসার ইনচার্জ (ওসি) সাহেদ উদ্দিন বিষয়টি জানার জন্য মালিক পক্ষ এবং সমিতির দায়ীত্ব প্রাপ্তদের ডেকে নেন। থানায় বিষয়টি নিয়ে আলাপ চলাকালীন সময় মোজাম্মেল চেয়ারম্যান ০১৬২১৮৭৬১৯৫ নাস্বার থেকে নাজিম উদ্দিনের ব্যবহারিত মোবাইল নাস্বার ০১৯৩১৫৭০৪৫১ নাস্বারে ফোন দিয়ে অকত্য ভাষায় গাল মন্দ করে এবং হত্যার হুমকি দেন। যাহা নাজিম উদ্দিনের মোবাইলে রেকর্ড হয়ে যায়। সাথে সাথে নাজিম উদ্দিন চরজব্বার থানায় জিডি করেন। নাজিম উদ্দিন আরো বলেন, দির্ঘদিন ধরে সে গোপনে সমিতির সভাপতি পরিচয় দিয়ে আমাদের নতুন কমিটিতে বিভ্রান্ত সৃস্টি করে আসছে, নিজেকে সভাপতি পরিচয় দিয়ে ভূয়া চালান দিয়ে লক্ষ লক্ষ টাকা হাতিয়ে নিচ্ছে,

এর আগেও বহুবার আমাকে হত্যার হুমকি দেয়। তিনি তদন্ত পূর্বক সঠিক বিচারের জন্য স্থনীয় সংসদ সদস্য, নোয়াখালী পুলিশ সুপার, নোয়াখালী জেলা প্রসাশকের দৃষ্টি আকর্ষণ করছেন। সমিতির নেতারা মোজাম্মেল চেয়ারম্যানের সকল অপরাধ আমলে নিয়ে তাকে দ্রæত গ্রেফতার একং শাস্তির দাবি জানান। এ বিষয়ে জানতে মোজাম্মেল চেয়ারম্যানকে একাধিকবার ফোন করা হলেও তিনি ফোন রিসিভ না করায় তার বক্তব্য নেয়া সম্ভব হয়নি। চরজব্বার থানার তদন্ত(ওসি) মোঃ ইব্রাহিম খলিল ফোনে হুমকির বিষয়ে সত্যতা স্বিকার করে বলেন, মোজাম্মেল চেয়ারম্যান নাজিম উদ্দিনকে মোবাইল ফোনে খারাপ আচোরন করে এবং প্রাননাশের হুমকি দেয়,

মোবাইল রেকর্ডটি আমরা শুনেছি, নাজিম উদ্দিন একটি সাধারন ডায়েরি করেছে, আমরা বিষয়টি খতিয়ে দেখছি। চরজব্বার থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) সাহেদ উদ্দিন বলেন, হুমকির বিষয়ে একটি জিডি করেছে নাজিম উদ্দিন, বিষয়টি তদন্ত করে ব্যবস্থা নেয়া হবে। উল্লেখ্য যে ২ নং চরবাটা ইউনিয়ন চেয়ারম্যান মোজাম্মেলের বিরুদ্ধে ইউনিয়ন পরিষদে বিচারপ্রার্থী নারীকে রাতভর আটকে রেখে ধর্ষণ, শালিসের নামে স্কুল ছাত্রী ও তার পরিবারকে মারধর,

অবৈধ বালু উত্তোলন, বিচার প্রার্থী অসহায় ব্যক্তিকে টয়লেটে আটকে রেখে নির্যাতন,সরকারি গাছ কর্তনসহ একাধিক মামলা রয়েছে তার বিরুদ্ধে। তার এসব অনিয়ম অত্যাচারে অতিষ্ঠ হয়ে ইউ সদস্যগন জেলা প্রশাসক বরাবর অনাস্থা দেন। এসব অনিয়ম প্রমাণ পাওয়ায় একাধিকবার চেয়ারম্যান পদ থেকে সাময়িক বরখাস্ত হন তিনি এবং উপরোক্ত মামলায় র্দিঘদিন জেল খাটেন চেয়ারম্যান মোজাম্মেল।