সুনামগঞ্জে সিএনজি-পিকআপের মুখামুখি সংঘর্ষে নিহত ১

ফুয়াদ মনি, সুনামগঞ্জ প্রতিনিধিঃ সুনামগঞ্জে তালতো বোনের লাশ দেখতে গিয়ে সিএনজি-পিকআপের মুখামুখি সংঘর্ষে সুফিয়া বেগম(৫০) নামের এক নারী নিহত হয়েছেন। এসময় আরও ৪ জন আহত হয়েছেন। রোববার বেলা ১১ টায় সিলেট-সুনামগঞ্জ মহাসড়কের হালোয়ারগাও এলাকায় এ ঘটনা ঘটে।

নিহত হলেন, জগন্নাথপুর উপজেলার কলকলিয়া ইউনিয়নের কামারখাল গ্রামের ফেরদৌস মিয়ার স্ত্রী। সুনামগঞ্জের ট্রাফিক পুলিশের ইন্সপেক্টর শামছুল ইসলাম বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন। নিহতের পরিবার ও পুলিশ সুত্রে জানা যায়, সুনামগঞ্জ সদর উপজেলার মোহনপুর ইউনিয়নের মুরারবন্দ গ্রামে হারুন অর রশীদের বাড়িতে নিহতের তালতো বোনের লাশ দেখতে সকালে জগন্নাথপুর থেকে সিএন্ডজি যোগে বের হন।

বেলা ১১ টার দিকে সিলেট-সুনামগঞ্জ মহাসড়কের হালোয়ারগাঁও এলাকায় আসলে সুনামগঞ্জ থেকে ছেড়ে যাওয়া পিকআপের মুখোমুখি সংঘর্ষ হয়। এতে ঘটনাস্থলে সুফিয়া বেগম মারা যান। এসময় আহত হয়েছেন, নিহতের বোন সাফিয়া খাতুন(৪৫), ফরমালা বেগম(৭০), সায়েম আহমদ(১৭), মেহেদি আহমদ(১২)।

এসময় স্থানীয়রা উদ্ধার করে নিহত সুফিয়াসহ আহতদেরকে সুনামগঞ্জ সদর হাসপাতালে নিয়ে আসলে কর্তব্যরত চিকিৎসক সুফিয়াকে মৃত ঘোষনা করেন এবং গুরুতর আহদেরকে উন্নত চিকিৎসার জন্য সিলেট এমএ জি ওসমানী মেডিকেল কলেজ হাসপালে প্রেরন করা হয়েছে। ঘটনার পর পিকআপ চালক পালিয়ে যায়। নিহতের স্বামী ফেরদৌস মিয়া জানান,

সুফিয়া তার তালতো বোনের লাশ দেখতে মুরারব্দ গ্রামে যাওয়ার পথে দুর্ঘটনায় মারা যায়। আমি বিশ্বাস করতে পারছি না। এসময় তার সাথে থাকা বোন বাগিনাসহ চারজন আহত হয়েছেন। ইন্সপেক্টর শামছুল ইসলাম জানান, দুর্ঘটনার পর স্থানীয়রা তাদেরকে উদ্ধার সদর হাসপালে নিয়ে আসলে একজনের মারা যায়। ৪জন আহত হয়েছেন। আমরা ঘাতক পিকআপ চালককে গ্রেফতারের চেষ্টা করছি।