সীমিত আকারে বৌদ্ধ ধর্মালম্বীদের বুদ্ধ পূর্ণিমা পালিত

রানা মারমা, বান্দরবান প্রতিনিধি: করোনা মহামারিতে ভিন্ন প্রেক্ষাপটে পালিত হচ্ছে বৌদ্ধ ধর্মাবলম্বীদের সবচেয়ে বড় উৎসব বুদ্ধ পূর্ণিমা। এবার উড়বে না ফানুস, ঘরে বসেই প্রার্থনা আর ধর্মীয় মঙ্গল কর্ম সম্পাদন করছে বৌদ্ধ ধর্মালম্বীরা।

প্রতি বছর উৎসবমুখর পরিবেশে এ দিনটি উদযাপন করে থাকে বৌদ্ধ ধর্মালম্বীরা। বান্দরবানের বৌদ্ধ বিহারগুলো সাজানো হয় বর্নিল সাজে,আর শত শত ভক্তের পদচারণায় মুখরিত হয় দিনটি। বান্দরবানের বিভিন্ন বিহারে বিহারে দিনব্যাপী হতো প্রার্থনা, ছোওয়াইং প্রদান (ভান্তেদের খাবার দান) প্রদীপ প্রজ্জলন, বোধিবৃক্ষমূলে চন্দন জল সিঞ্চনসহ নানা আয়োজন, তবে এই বছর করোনার কারণে কোনো উৎসবই পালন করছেন না তারা, ঘরোয়াভাবে প্রার্থনার মধ্য দিয়েই এ দিনটি উদযাপন করছে বৌদ্ধ সম্প্রদায়ের জনসাধারণ।

বৌদ্ধ ধর্মমতে, আজ থেকে আড়াই হাজার বছর আগে এ দিনে মহামতি গৌতম বুদ্ধ জন্মগ্রহণ করেছিলেন। তার জন্ম, বোধিলাভ ও প্রয়াণ বৈশাখি পূর্ণিমার দিনে হয়েছিল বলে একে ‘বুদ্ধ পূর্ণিমা’ বলা হয়ে থাকে।

বান্দরবান কেন্দ্রীয় সার্ব জনীন বৌদ্ধ বিহারের অধ্যক্ষ উদয়নজ্যোতি মহাস্থবির জানান; করোনা সংক্রামকের কারণে সরকারি নিদের্শনা অনুযায়ী আমরা এই বছর বুদ্ধ পূর্ণিমার সকল আনুষ্ঠানিকতা বন্ধ রেখেছি, শুধুমাত্র বিহারে অবস্থানরত ভিক্ষুরা ধর্মীয় রীতিনীতি পালন করে এবারের বুদ্ধ পূর্নিমা পালন করছি।