সিলেট সুরমা ও লোভা নদীর পানি ৯০ সে, মি, বিপদ সীমার উপর দিয়ে প্রবাহিত হচ্ছে

এনাম রহমান, সিলেট জেলা প্রতিনিধি:  ভারতের উজান থেকে নেমে আসা পাহাড়ী ঢলের কারণে কানাইঘাটে সুরমা ও লােভা নদীর তীরবর্তী বিভিন্ন এলাকায় নদী ভাঙ্গন দেখা দিয়েছে। আজ বৃহস্পতিবার দুপুর পর্যন্ত সুরমা নদীর পানি বিপদ সীমার ৯০ সে. মি. উপর দিয়ে প্রবাহিত হচ্ছিল।

উজান থেকে নেমে আসা পাহাড়ী ঢলের কারনে গত সােমবার রাত থেকে লক্ষীপ্রসাদ পশ্চিম ইউপির নদী ভাঙ্গন কবলিত কুরঘড়ি, বনগৌরিপুর, দক্ষিণ লক্ষীপ্রসাদ গ্রামের সুরমা ডাইকের বিভিন্ন স্থানে ভাঙ্গন দেখা দেয়।বৃহস্পতিবার সকাল ১০টার দিকে কুওরঘড়ি মন্দিরের ঘাট এলাকায় সুরমা ডাইকের কয়েক ফুট রাস্তা পানির স্রোতে একেবারে ভেঙ্গে গিয়ে যােগাযােগ বিচ্ছিহ্ন হয়ে আশপাশ এলাকা পানিতে তলিয়ে যায়।

নদী ভাঙ্গনের খবর পেয়ে দ্রুত ঘটনাস্থলে ছুটে যান উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মােহাম্মদ বারিউল করিম খান। তিনি সুরমা ডাইকের ভাঙ্গনের বিষয়টি সিলেটের জেলা প্রশাসক কাজী এমদাদুল হক ও সিলেট পানি উন্নয়ন বাের্ডের কর্মকর্তাদের অবহিত করেন সেখানে।

সার্বক্ষণিক উপস্থিত থেকে নদী ভাঙ্গন প্রতিরােধ ও ভাঙ্গন কবলিত এলাকা মেরামতের জন্য বাঁশের গড় ও বালু-মাটির বস্তা ফেলার কাজ শুরু করেন নির্বাহী কর্মকর্তা বারিউল করিম খান। লক্ষী প্রসাদ পশ্চিম ইউপির চেয়ারম্যান জেমস্ লিও ফারগুসন নানকা ও সিলেট পানি উন্নয়ন বাের্ডের উপ-সহকারী প্রকৌশলী। রুবেল সরকারও সেখানে উপস্থিত ছিলেন।