সিলেট নর্থ ইস্ট মেডিকেলে করােনা উপসর্গ নিয়ে ৮ জনের মৃত্যু

এনাম রহমান, সিলেট জেলা প্রতিনিধি: সিলেটের নর্থইস্ট মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে করােনা ভাইরাসের উপসর্গ ও সর্দি কাশি জ্বর নিয়ে গত পাঁচ দিনে ভর্তি হয়েছেন ৩১ জন রোগী। এদের মধ্যে মৃত্যু হয়েছে ৮ জনের আজ শুক্রবার (৫ জুন) করােনার উপসর্গ নিয়ে মারা গেছেন আরও একজন।

মারা যাওয়াদের মধ্যে মাত্র একজনের নমুনা সংগ্রহ করা হয়েছে, বাকিদের নমুনা সংগ্রহ করা যায়নি। হাসপাতালটির এম ডি, শাহরিয়ার হোসেন চৌধুরী চ্যানেল এস কে, এই তথ্য নিশ্চিত করেছেন। তিনি বলেন, গত ৫ দিনে করােনা সন্দেহ ভাজনদের মধ্যে ৮ জনের মৃত্যু হয়েছে। তারা সবাই সন্দেহভাজন ছিলেন।

তবে ১ জন ছাড়া আর কারও নমুনা সংগ্রহ করা সম্ভব হয়নি। এর কারণ জানতে চাইলে তিনি বলেন, আমাদের নমুনা সংগ্রহের কোনাে কিট নেই। তাই প্রক্রিয়াগত জটিলতার কারণে বেশির ভাগের নমুনা সংগ্রহ করা যায়নি। কিছু কিছু ক্ষেত্রে পরিবারের সদস্যদের অনীহার কারণেও তা সম্ভব হয়নি।

এদিকে গত ০৩/০৬/২০ শামসুদ্দিন হাসপাতালের কর্মরত একজন চিকিৎসক বলেছেন বর্তমানে অর্থ হাসপাতালে করোনা আক্রান্ত রোগীদের জন্য সিট খালি নেই এবং পর্যাপ্ত ভেল্টিনেটার ও কিট নেই। গত একদিনে সিলেটে সর্বোচ্চ ৬০ জন করোনা আক্রান্ত হয়েছেন। ০১ জুন ২০ থেকে মৌখিক চুক্তির ভিত্তিতে হাসপাতালটি করােনা উপসর্গ নিয়ে আসা রােগীদের ভর্তি নেওয়া শুরু করে।

গত বৃহস্পতিবার পর্যন্ত করোনা সন্দেহ উপসর্গ নিয়ে এ পর্যন্ত ৩১ রােগী ভর্তি রয়েছেন। ৪ জনের নমুনা সংগ্রহ করে পাঠানাে হয়েছিল শহীদ শামসুদ্দিন আহমদ হাসপাতালে। তাদের মধ্যে ৩ জনের করােনা শনাক্ত হয়েছে। এদের মধ্যে আশঙ্কাজনক অবস্থায় ২ জন আইসিইউতে আছেন বলে জানান ডা. শাহরিয়ার হোসেন চৌধুরী।

তিনি আরো বলেন সরকারের সঙ্গে এখনও আমাদের আনুষ্ঠানিক চুক্তি হয়নি। মৌখিক চুক্তির মাধ্যমে কার্যক্রম শুরু হয়েছে। কারণ প্রতিদিন আশঙ্কাজনক হারে রােগীর সংখ্যা বাড়ছে। তাই ২০০ বেডের করােনা ইউনিট চালু করি আমরা। এখানে ২০ বেডের আইসিইউ সুবিধাও রয়েছে। রােগীদের স্বাস্থ্যগত অবস্থা বিবেচনা ভেদে তিনটি জোনে ভাগ করা হয়েছে এই করােনা ইউনিট।