সিলেট নগরীতে পৃথক পৃথক জঙ্গি অভিযান বোমা সরঞ্জাম ও ল্যাপটপ উদ্ধার

এনাম রহমান, সিলেট জেলা প্রতিনিধি : পবিত্র নগরী সিলেট আবারও অসান্ত করতে জঙ্গিরা থৎপর হয়ে উঠেছে। সিলেটে আটককৃত সন্দেহভাজন জঙ্গি সানাউল ইসলাম সাদির বাসা থেকে একটি বোমা ও বোমা তৈরির কিছু সরঞ্জাম উদ্ধার করেছে পুলিশ।

আজ মঙ্গলবার রাত সাড়ে নয়টায় সময় নগরীর জালালাবাদ আবাসিক এলাকায় সানা- উলের নিজ বাসায় অভিযান চালিয়ে তাকে গ্রেফতার করে পুলিশ। বিষয়টি প্রতিবেদককে নিশ্চিত করেন স্থানীয় সিটি করপোরেশনের কাউন্সিলর আফতাব হোসেন খান।

পরে গ্রেপ্তারকৃত জঙ্গির তথ্য মতে রাত এগারোটা নাগাদ টিলাগড়ের শাপলাবাগ ৪০/এ শাহ ভিলায় অভিযান চালানোর পরিকল্পনা করে পুলিশ। এসময় ঐ এলাকায় স্থানীয় সিটি করপোরেশনের কাউন্সিলর আজাদুর রহমান আজাদও উপস্থিত ছিলেন। শাহ ভিলার মালিক,

শাহ মো. সামদ আলী জানান জঙ্গিরা প্রায় ২ মাস পূর্বে তাঁর বাসা ভাড়া নিতে চেয়েছিলো। কিন্তু প্রকৃত আইডি কার্ড ও দরকারি কিছু কাগজপত্র দেখাতে অস্বীকৃতি জানালে তিনি তাদেরকে বাসা ভাড়া দেননি। জানা যায় জঙ্গিরা টিলাগড়ে ট্রেনিং সেন্টার খুলতে চেয়েছিলো।

যেখান থেকে তাদের মূল লক্ষ্য ছিল সিলেট নগরীর গুরুত্বপূর্ণ স্থানগুলোতে হামলা করার পরিকল্পনা করতে চাইছিলো। এদিকে এর আগে নব্য জেএমবি’র সিলেট সেক্টর কমান্ডারসহ ৫ জনকে আটক করে পুলিশ। পুলিশের ভাষ্য হযরত শাহজালাল রহমাতুল্লাহ আলাইহির মাজারে হামলা চালানোর পরিকল্পনা ছিল তাদের প্রথম টার্গেট কিন্তু তাদের এই লক্ষ্য সফল হতে দেয়নি সিলেটের চক্ষুস পুলিশ বাহিনী।

আটকৃত জঙ্গিরা হলো, নাইমুজ্জামান, মির্জা সায়েম, জুয়েল, সানাউল ইসলাম সাদি ও রুবেল। পুলিশের দাবি নাইমুজ্জামান নব্য জেএমবি’র সিলেট আঞ্চলিক কমান্ডার। সে শাহজালাল বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ব- বিদ্যালয়ের ছাত্র।

একই বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থী সাদি আর সায়েম লেখাপড়া করে মদনমোহন কলেজে। বাকি দুজনের বিষয়ে রিপোর্টা লেখার আগ পর্যন্ত জানা যায়নি তবে খুব শীঘ্রই তাদের পরিচয় পেয়ে যাবে আইনশৃঙ্খলা বাহিনী।