সিলেট নগরবাসীর জন‌্য ঈদ কে ঘিরে পুলিশের বিশেষ নির্দেশনা

এনাম রহমান, সিলেট জেলা প্রতিনিধি: আগামী ১ আগস্ট দেশব্যাপী পালিত হবে মুসলিম উম্মাহ’র ধর্মীয় উৎসব ঈদুল আযহা। এ লক্ষে ইতোমধ্যে চলছে শেষ সময়ের প্রস্তুতি। মহামারী করোনার কারণে সামাজিক দূরত্ব ও স্বাস্থ্যবিধির বিষয়ে জোর দিয়েই চলছে সকল কাজ।

ব্যতিক্রম নয় সিলেটেও। তাই সিলেটে ঈদুল আযহাকে নিরবচ্ছিন্ন, নিরাপদ করতে ও জনসাধারণের সুবিধার্থে বেশ কিছু নির্দেশনা উল্লেখ করে বিজ্ঞপ্তি প্রকাশ করেছে সিলেট মেট্রোপলিটন পুলিশ। গতকাল মঙ্গলবার রাতে সিলেট মেট্রোপলিটন পুলিশের অতিরিক্ত উপ-কমিশনার (ট্রাফিক ও অতিরিক্ত দায়িত্বে গণমাধ্যম) স্বাক্ষরিত গণমাধ্যমে পাঠানো বিজ্ঞপ্তিতে সকল ক্ষেত্রে স্বাস্থ্যবিধি মেনে মহামারী করোনা থেকে নিরাপদ থাকতে ও ঈদের কেনাকাটা এবং কোরবানির পশুর হাটে নিরাপদ থাকতে ১৭ টি নির্দেশনা দেয়া হয়েছে।

নির্দেশনাগুলো হলো- ১. ঈদের জামায়াতে যাওয়ার সময় নগদ অর্থ, মোবাইল ফোন বহন করার ক্ষেত্রে সর্তক থাকুন। ঈদের জামায়াতে যাওয়ার সময় স্বাস্থ্যবিধি মেনে অবশ্যই মাস্ক পরিধান করুন, মসজিদে সংরক্ষিত জায়নামাজ ও টুপি ব্যবহার থেকে বিরত থাকুন। নিজ নিজ বাসস্থান থেকে ওযু করে মসজিদে যাবেন। ২. করোনা ভাইরাস সংক্রমণ রোধে মসজিদে জামায়াত শেষে কোলাকুলি এবং পরস্পর হাত মেলানো পরিহার করার জন্য অনুরোধ করা যাচ্ছে।

৩. ব্যাংক থেকে টাকা উত্তোলন এবং বহনে সর্বদা সতর্ক থাকুন। প্রয়োজনে অর্থ স্থানান্তরে পুলিশের সহায়তা নিন। ৪. মোবাইল ফোন ভিত্তিক আর্থিক লেনদেনকারী প্রতিষ্ঠান (যেমন বিকাশ, ইউক্যাশ, নগদ, রকেট ইত্যাদি) ব্যবহার করার ক্ষেত্রে প্রতারক চক্র হতে সর্বদা সজাগ থাকুন। ৫. মাস্ক, পিপিই পরে চুরি, ডাকাতি রোধে পুলিশ পরিচয়ে বা অপরিচিত কাউকে বাসায় প্রবেশ করতে দিবেন না। ৬. কোরবানির পশু সিটি কর্পোরেশন কর্তৃক নির্ধারিত স্থানে এবং ইউনিয়ন এলাকায় উপজেলা প্রশাসন কর্তৃক নির্ধারিত স্থানে জবাই করার জন্য অনুরোধ করা হলো। পশু জবাইয়ের বর্জ্য নিদিষ্ট জায়গায় রাখার জন্য অনুরোধ করা হলো।

এ ক্ষেত্রে স্থানীয় ওয়ার্ড কাউন্সিলর এর সাথে যোগাযোগ করে পশু জবাই এর অস্থায়ী স্থান সম্পর্কে জানার জন্য অনুরোধ করা গেলো। ৭. প্রতিটি পশুর হাটে জাল টাকা সনাক্তকরণে ব্যাংক কর্তৃক স্থাপিত বুথে জাল টাকা সনাক্ত করণ মেশিন দ্বারা টাকা পরীক্ষা করার অনুরোধ করা হলো। ৮. ট্রাফিক আইন মেনে চলুন। যানজট নিরসনে ব্যক্তিগত গাড়ী মসজিদ হতে দূরে পার্কিং এর স্থানে রাখুন। ৯. ঈদ উপলক্ষে বাসা/বাড়িতে গৃহকর্মী নিযুক্ত করলে তাদের প্রতি বিশেষ নজর রাখুন। বাসা ছেড়ে যাওয়ার আগে ফ্রিজ বন্ধ রাখুন। বালতি, গামলা, বদনা ইত্যাদি পানি শূন্য করে উপুড় করে রাখুন ও ডেঙ্গু রোগের বাহক এডিস মশার বংশ বিস্তার রোধে সহযোগিতা করুন।

১০. ঈদ উপলক্ষে ছুটিতে গেলে বা বাসা ত্যাগ করলে আপনার বাসার দরজা-জানালা সঠিকভাবে তালাবদ্ধ করুন, আপনার বাসা/ অফিসে ক্লোজ সার্কিট ক্যামেরা ব্যবহার করুন, দরজায় নিরাপত্তা এলার্মযুক্ত তালা ব্যবহার করুন, মহল্লা ও বাড়ির সামনে সন্দেহজনক কাউকে/ দুস্কৃতকারীকে ঘোরাফেরা করতে দেখলে স্থানীয় পুলিশ ফাঁড়ি ও থানা পুলিশকে অবহিত করুন। ১১. ঈদের আগে/পরে সময় নিয়ে ভ্রমণ পরিকল্পনা করুন। শেষ মুহূর্তে ট্রেন ও বাসের মারাত্মক ভিড় এড়িয়ে চলুন। জীবনের ঝুঁকি নিয়ে অতিরিক্ত যাত্রী হয়ে ট্রেন ও বাসে চলাচল করবেন না। যাত্রী সাধারণকে ট্রেন ও বাসের ছাদে এবং ট্রাকে করে ভ্রমণ না করার জন্য অনুরোধ করা হলো। ১২. পুরুষ ও নারী পকেটমার এবং প্রতারক চক্র হতে সর্তক থাকুন। বাস টার্মিনাল সমূহে, রাস্তায় ও হাটে আগত ক্রেতা বিক্রেতাগণ কোন অপরিচিত ব্যক্তি, অজ্ঞান পার্টির নিকট হতে কোন খাদ্যদ্রব্য গ্রহণ করবেন না। ১৩. রাত্রিকালে জনবহুল রাস্তা দিয়ে চলাচল করার চেষ্টা করুন।

রাস্তায় চলাচলের সময় সঙ্গে থাকা মূল্যবান সামগ্রী বা টাকা পয়সা সম্পর্কে সাবধানতা অবলম্বন করুন এবং মধ্য কিংবা শেষ রাতে বাসস্ট্যান্ডে নামলে সতর্কতার সাথে চলাচল করুন, প্রয়োজনে পুলিশের সহায়তা নিন। ১৪. ট্যাক্সি বা অটোরিক্সা বা ভাড়ায় চালিত অন্যান্য গাড়ি ভাড়া করার সময় গাড়ির রেজিস্ট্রেশন নম্বর এবং ড্রাইভারের নাম, ঠিকানা লিখে নিন। প্রয়োজনে উক্ত রেজিস্ট্রেশন নম্বর ও ড্রাইভারের নাম, ঠিকানা নিকটজনের নম্বরে এসএমএস করুন।

১৫. সিএনজিতে পূর্ব থেকে অপরিচিত যাত্রী বসা থাকলে তা এড়িয়ে চলুন। সন্দেহভাজন মোটরসাইকেল ব্যবহারকারী থেকে সতর্ক থাকুন। ১৬. দোকান মালিকগন মার্কেট/শপিং মলে কোন নগদ অর্থ রাখবেন না, মার্কেট/শপিং মল ত্যাগের পূর্বে অবশ্যই নিশ্চিত হোন যে, আপনার প্রতিষ্ঠান যথাযথভাবে তালাবদ্ধ করা হয়েছে, মালিক পক্ষ স্ব স্ব মার্কেট/শপিং মলের নিরাপত্তা ব্যবস্থা জোরদার করুন। ১৭. সন্দেহজনক কোন ব্যক্তি বা বস্তু প্রত্যক্ষ করলে অথবা আপনার যে কোন মতামত/ অভিমত/ অভিযোগ জানাতে নিম্নে বর্ণিত নাম্বার সমূহে অবহিত করার জন্য বিশেষভাবে অনুরোধ করা হলো।