সিলেট জেলার সকল ইউএনও- দের নিরাপত্তা জোরদার

এনাম রহমান, সিলেট জেলা প্রতিনিধি: সিলেট জেলার সকল উপজেলার ইউএনও’দের সার্বিক নিরাপত্তা ব্যবস্থা জোরদার করেছে উর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষ। প্রাথমিকভাবে সিলেটের ১৩ উপজেলায় ইউএনওদের নিরাপত্তায় ৪ জন করে সশস্ত্র আনসার সদস্য মোতায়েন করা হয়েছে।

আনসার ও ভিডিপি সিলেট জেলা কমান্ড্যান্ট এনামুল খান এ তথ্য নিশ্চিত করে বলেন, দিনাজপুরের ঘোড়াঘাট উপজেলা নির্বাহী অফিসার (ইউএনও) ওয়াহিদা খানমের উপর হামলার পর দেশের সব ইউএনওর সার্বক্ষণিক শারীরিক ও বাসভবনের নিরাপত্তায় সশস্ত্র আনসার সদস্য মোতায়েনের নির্দেশ দিয়েছে সরকার।

শুক্রবার (৪ সেপ্টেম্বর) স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের জননিরাপত্তা বিভাগ থেকে আনসার ও গ্রাম প্রতিরক্ষা বাহিনীর মহাপরিচালককে (ডিজি) দেওয়া চিঠিতে এ নির্দেশনা দেওয়া হয়। সেই নির্দেশনার আলোকে আনসার ও ভিডিপি সিলেট রেঞ্জ পরিচালক মোঃ রফিকুল ইসলাম সিলেটের সকল উপজেলায় চারজন করে আনসার সদস্য মোতায়েন করার সিন্ধান্ত গ্রহণ করেন।

সিলেটের জেলা প্রশাসক এম কাজী এমদাদুল ইসলাম এর সাথে জেলা কমান্ড্যান্ট এনামুল খান আলোচনা করে সিলেটের সকল উপজেলায় ৫২জন আনসার সদস্য মোতায়েন করেছেন। ইতিমধ্যে সকল উপজেলায় সশস্ত্র আনসার সদস্যরা নিজ নিজ কর্মস্থলে দায়িত্ব পালন করছেন। প্রতি উপজেলা ৪জন সদস্যের মধ্যে একজন করে পিসি ও তিন জন করে আনসার সদস্য রয়েছে।

সিলেটের কয়েকজন ইউএনও’র সাথে কথা বলে জানা যায়, প্রশাসনিক কর্মকর্তা হিসেবে তাদেরকে উপজেলায় জলমহাল ও হাটবাজার ইজারা, বালু ও পাথর কোয়ারী লিজ, সরকারি সম্পত্তি রক্ষা, অবৈধ দখল উচ্ছেদ অভিযান এবং ভ্রাম্যমাণ আদালত পরিচালনা করতে হয়। পাশাপাশি তাদেরকে বিভিন্ন পাবলিক পরীক্ষা ও নির্বাচনসহ বহু ঝুঁকিপূর্ণ দায়িত্ব পালন করতে হয়।

বিধি মোতাবেক এসব কাজ করায় অনেকেই তাদের ওপর সংক্ষুব্ধ হন। এ অবস্থায় গত বুধবার ইউএনও’র ওপর হামলার ঘটনায় তাঁরা দায়িত্ব পালন করতে উৎকণ্ঠার মধ্যে রয়েছেন। এরই মধ্যে বিয়ানীবাজারের ইউএনও তাঁর সার্বিক নিরাপত্তার জন্য ৪ জন নয়,

এক ব্যাটালিয়ন আনসার নিয়োগের দাবি তুলেছেন। বিশ্বনাথ উপজেলা নির্বাহী অফিসার বর্ণালী পাল জানান, আপাতত ৪ জন আনসার সদস্য আমার ও বাসভবনের নিরাপত্তার দায়িত্বে রয়েছেন। আমি আশাবাদী এ সংখ্যা আরো বাড়বে।

দক্ষিণ সুরমা উপজেলা নির্বাহী অফিসার মিন্টু চৌধুরী বলেন, সরকারের এই উদ্যোগ বাস্তবমূখী ও সময় উপযোগী সিদ্ধান্ত। আমরা নির্বাহী কার্যক্রম পরিচালনা করতে গিয়ে অনেক সময় আমাদের নিরাপত্তার বিষয়টি খুবই জরুরী হয়ে পড়ে। এই আনসার ভিডিপি নিয়োগের ফলে উপজেলা পরিষদের কার্যক্রমে গতির সঞ্চার হবে।

এ ব্যাপারে আনসার ও ভিডিপি সিলেট জেলা কমান্ড্যান্ট এনামুল খান বলেন, ঘোড়াঘাটের ইউএনও’র ওপর সন্ত্রাসী হামলার পর থেকেই প্রাথমিকভাবে সিলেটের সকল ইউএনও’র নিরাপত্তার জন্য ৪ জন করে সশস্ত্র আনসার সদস্য মোতায়েন করা হয়েছে। অবস্থার পরিপ্রেক্ষিতে এ সংখ্যা আগামীতে আরো বাড়তে পারে বলে তিনি জানান।