সিলেট জেলাকে মাদক মুক্ত ঘোষণা করার পর থেকে উদ্ধার হচ্ছে মাদকের চালান

এনাম রহমান, সিলেট প্রতিনিধিঃ সিলেটের বিয়ানীবাজার উপজেলায় পুলিশের পৃথক পৃথক অভিযানে ২০০ পিস ইয়াবা ও ২২ বোতল অফিসার চয়েস মদসহ ৩ মাদক ব্যবসায়ীকে আটক করেছে পুলিশ।

আটককৃত মাদক পাচার কারিরা হলো, বিয়ানিবাজার উপজেলার গজুকাটা গ্রামের মৃত আব্দুল মালিকের ছেলে জালাল উদ্দিন ওরফে জালাই(৫৫), পূর্ব নয়াগ্রামের মৃত মঈন উদ্দিনের ছেলে মেজবা হোসেন (৩৫), ও ছোটদেশ (ফকিরটিকর) গ্রামের মৃত নূর উদ্দিন আলীর ছেলে আব্দুল কাদির (৩৫)।

সিলেটের পুলিশ সুপার মহোদয় মোহাম্মদ ফরিদ উদ্দিন পিপিএম এর নির্দেশনায়। অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (জকিগঞ্জ সার্কেল) সুদীপ্ত রায় ও বিয়ানীবাজার থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) অবনী শংকর কর এর নেতৃত্বে আজ শনিবার বিকেলের দিকে এসআই রুমেন আহমদসহ পুলিশের একটি দল উপজেলার পূর্ব নয়াগ্রামে অভিযানে নামে। অভিযান চালিয়ে ১৫০ পিস ইয়াবাসহ মেজবা হোসেন নামের এক মাদক ব্যবসায়ীকে আটক করে।

আটককৃতের বিরুদ্ধে বিয়ানীবাজার থানায় মাদক দ্রব্য নিয়ন্ত্রন আইনে মামলা (মামলা নং-২১, তাং-২২/০৭/২০১৯) দায়ের করে তাকে আদালতে প্রেরণ করা হয়। আজ একই দিন বেলা দুইটার দিকে অপর এক অভিযানে এসআই মোহাম্মদ হাবিবুল্লাহ সহ বিয়ানীবাজার থানা পুলিশের একটি চক্ষুস দল পৌরবাজারস্থ মোকাম রোড থেকে আব্দুল কাদির নামের একজনকে ৫০ পিস ইয়াবাসহ আটক করেন।

এদিকে আজ শনিবার এসআই মো. শাহ আলম ভূইয়াসহ বিয়ানীবাজার থানা পুলিশের একটি দল অভিযান চালিয়ে উপজেলার গোয়ালাগ্রাম থেকে ২২ বোতল অফিসার চয়েস মদসহ জালাল উদ্দিন ওরফে জলাই নামের এক কুখ্যাত মাদক ব্যবসায়ীকে আটক করা হয়েছে। তার বিরুদ্ধে বিয়ানীবাজার থানায় মামলা দায়ের করে তাকে আদালতে প্রেরণ করা হয়।

সিলেটে জনবান্ধব পুলিশ সুপার মোহাম্মদ ফরিদ উদ্দিন পিপিএম, মহোদয়ের এর কটুর নির্দেশনা সিলেট কে মাদক মুক্ত করার ঘোষণা দিয়েছিলেন, এর পর থেকে সিলেট শহর ও বিভিন্ন উপজেলায় অভিযানে নামে আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর বিশেষ দল, তারই ধারাবাহিকতায় উদ্ধার করা হয় বিয়ানিবাজারে মাদক ও আসামী, আটকের বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (সদর ও মিডিয়া) মো. লুৎফর রহমান। সিলেট থেকে মাদক নির্মূল না হওয়া পর্যন্ত চলমান মাদকবিরোধী অভিযান অব্যাহত থাকবে বলে তিনি জানান।