সিলেটে করোনা পজিটিভ আতঙ্কে বিদেশগামী যাত্রীরা

এনাম রহমান, সিলেট জেলা প্রতিনিধি:  সিলেটে বিদেশগামী যাত্রীরা অনেক কাঠখড় পুড়িয়ে তারা বিদেশ ফিরে যাওয়ার টিকেট সংগ্রহ করেছিলেন। কিন্তু ফ্লাইটের ৭২ ঘন্টা আগে করোনাভাইরাস সনাক্তের জন্য নমুনা পরীক্ষায় দিয়ে হতাশ হয়েছেন অনেকেই কোন উপসর্গ না থাকলেও রিপোর্ট দেখে তাদের চোখে অন্ধকার নেমে আসে। করোনা পরীক্ষায় তাদের পজিটিভ এসেছে।

অর্থাৎ তারা করোনা আক্রান্ত। দুঃখ প্রকাশ করে এক যাত্রী বলেন মনে হচ্ছে আকাশ ভেঙ্গে মাথায় পড়েছে। এমতাবস্থায় নির্ধারিত ফ্লাইটে বিদেশ ফিরে যাওয়া হচ্ছে না তাদের। টিকেট বাতিল করে তাদের ঠিকানা হচ্ছে আইসোলেশনে। সিলেটে গত শনিবার বিকেল পর্যন্ত ৯১ জন বিদেশগামী যাত্রীর নমুনা পরীক্ষায় ২৪ জনেরই এসেছে পজিটিভ রিপোর্ট। আজ রবিবার সন্ধ্যায় এ প্রতিবেদন লেখা পর্যন্ত রিপোর্ট পাওয়ার অপেক্ষায় ছিলেন আরও ২৪৬ জন যাত্রী। সিভিল সার্জন অফিস সূত্র জানায়, যেসব যাত্রীর ফ্লাইট ২৬ জুলাই তাদের নমুনা সংগ্রহ করা হয় ২২ জুলাই।

ওই দিন সংগ্রহ করা হয় ১৬৯ জন যাত্রীর নমুনা। এর মধ্যে গত বৃহস্পতিবার রাতে ওসমানী মেডিকেল কলেজের ল্যাবে পরীক্ষা হয় ৯১ জনের নমুনা। এর মধ্যে পজেটিভ রিপোর্ট আসে ২৪ জনের। এছাড়া গত বৃহস্পতিবার ৮৯ জন ও গতকাল শুক্রবার আরও ৭৯ জনের নমুনা সংগ্রহ করে ওসমানী মেডিকেল কলেজের ল্যাবে পরীক্ষার জন্য পাঠানো হয়েছে। বিদেশযাত্রীদের নমুনা পরীক্ষার জন্য সিভিল সার্জন অফিস ও আবুল মাল আবদুল মুহিত ক্রীড়া কমপ্লেক্সে বুথ স্থাপন করা হয়েছে। সিভিল সার্জন অফিসের বুথ থেকে নাম নিবন্ধন ও রিপোর্ট প্রদানের কাজ করা হচ্ছে।

আর ক্রীড়া কমপ্লেক্সের বুথ থেকে হচ্ছে নমুনা সংগ্রহ। সিলেট নগরীর কুমারপাড়ার এক নারীর ২৬ জুলাই যুক্তরাজ্য ফিরে যাওয়ার কথা ছিল। কিন্তু নমুনা পরীক্ষায় তার রিপোর্ট এসেছে পজিটিভ। ওই নারী যাত্রী জানান, তার মধ্যে করোনার কোন উপসর্গই নেই। নমুনা পরীক্ষায় না দিলে তিনি করোনা আক্রান্ত সেটা হয়তো জানতেনই না। তিনি আরও জানান, অনেক কাঠখড় পুড়িয়ে তিনি যুক্তরাজ্যে ফিরে যাওয়ার বিমান টিকেট সংগ্রহ করেছিলেন। এখন টিকেট বাতিল করতে হয়েছে।

সিলেটের সিভিল সার্জন ডা. প্রেমানন্দ মন্ডল জানান, বিদেশযাত্রীদের ফ্লাইটের সাথে সামঞ্জস্য রেখে করোনাভাইরাস পরীক্ষার জন্য নাম নিবন্ধন, নমুনা সংগ্রহ ও রিপোর্ট প্রদানের তারিখ জানিয়ে দেওয়া হয়েছে। সে অনুযায়ী বিদেশযাত্রীরা এসে নাম নিবন্ধন করে নমুনা দিয়ে যাচ্ছেন। এ পর্যন্ত ৯১ জন বিদেশযাত্রীর রিপোর্ট পাওয়া গেছে। এর মধ্যে ২৪ জনের রিপোর্ট এসেছে পজেটিভ। এসব যাত্রী এখন বিদেশ যেতে পারবেন না। তারা অন্তত ১৪ দিন আইসোলেশনে থেকে পুনরায় নমুনা পরীক্ষা করে নেগেটিভ রিপোর্ট আসলে তারা বিদেশ যেতে পারবেন।