সিলেটের বিশ্বনাথ উপজেলায় রিক্সাশা চালক হত্যার ঘটনায় গ্রেফতার এক

এনাম রহমান, সিলেট জেলা প্রতিনিধি:  সিলেটের বিশ্বনাথে ইঞ্জিন চালিত রিক্সশা চালক শফিক মিয়া হত্যার ঘটনায় জড়িত সন্দেহে এক যুবককে গ্রেপ্তার করেছে বিশ্বনাথ থানা পুলিশ। গ্রেপ্তারকৃত যুবকের নাম জামাল উদ্দিন খান (৩২)। সে মৌলভীবাজারের শ্রীমঙ্গল থানার কালাপুর গ্রামের বাসিন্দা। বর্তমানে সে বিশ্বনাথ সদর ইউনিয়নের মােল্লারগাও গ্রামের একটি কলােনীতে বসবাস করে আসছিল।

উপজেলা সদর থেকে তাকে গ্রেপ্তার করা হয়। রবিবার দুপুরে তাকে আদালতে প্রেরণ করা হয়েছে বলে পুলিশ সূত্রে জানাগেছে। গত (২৯ আগষ্ট) শুক্রবার রাত ১০টার দিকে ব্যাটারী চালিত রিকশা চালক শফিক মিয়া লাশ বিশ্বনাথ সদর ইউনিয়নের রাজনগর দাশপাড়া গ্রামের রাস্তার পাশে একটি ড্রেইনের গাড ওয়ালের উপর দেখতে পাওয়া যায় মৃত্যদেহ স্থানীয়দের খবর পেয়ে পুলিশ লাশ উদ্ধার করে। লাশের গায়ে আঘাতের চিহ্ন ছিল। রিকশা চালককে হত্যা করে রাস্তা পাশে তার লাশ ফেলে দেয়া হয় বলে ধারনা করেন পুলিশ ও স্থানীয়দের।

এঘটনায় ওই রাতেই নিহত শফিক মিয়ার ভাই রফিক মিয়া বাদী হয়ে অজ্ঞাতনামা আসামি করে বিশ্বনাথ থানায় হত্যা মামলা দায়ের করেন। নিহত শফিক মিয়ার বাড়ি মানিকগঞ্জ জেলার সিংরাই থানার পারিল নওয়াদা গ্রামের শাহজাহান মিয়ার ছেলে। শাহজাহান মিয়া সপরিবারে বিশ্বনাথ উপজেলার শাহজির গাঁও গ্রামের হাজি মস্তফা মিয়ার বাড়িতে বসবাস করেন। তবে নিহত শফিক মিয়া স্ত্রী সন্তান নিয়ে উপজেলার রাজনগর গ্রামে একটি কলােনীতে বসবাস করে আসছিলেন।

পুলিশ জানায় বিশ্বনাথ থানার এসআই আফতাবউজ্জামান রিগ্যানের নেতৃত্বে একদল পুলিশ গােপন সংবাদের ভিত্তিতে অভিযান চালিয়ে রিকশা চালক হত্যা মামলার সন্দেহভাজন এক আসামিকে গ্রেপ্তার করতে সক্ষম হয়। গ্রেপ্তারকৃত আসামিকে আদালতে ৫দিনের রিমান্ড আবেদন করেছে পুলিশ। ব্যাটারী চালিত রিকশা চালক হত্যামামলার এক আসামিকে গ্রেপ্তারেরসত্যতা স্বীকার করে বিশ্বনাথ থানার ওসি(তদন্ত) রমা প্রসাদ চক্রবর্তি বলেন গ্রেপ্তারকৃতকে রবিবার বিকেলে আদালতে প্রেরণকরা হয়েছে। এ হত্যা কান্ডের মূল রহস্যউদঘাটন করতে পুলিশ তৎপর রয়েছে বলে তিনি জানান। চ্যানেল এস।