সিনহা হত্যার পর প্রায় শূন্যের কোটায় বিচারবহির্ভূত হত্যা

Major-Rashed-
গেল দুই মাসে প্রায় শূন্যের কোটায় বিচারবহির্ভূত হত্যা। আগস্টে বন্দুকযুদ্ধ একটি, সেপ্টেম্বরে নেই।

কক্সবাজারে তল্লাশি চৌকিতে পুলিশের গুলিতে অবসরপ্রাপ্ত সেনাকর্মকর্তা নিহত হওয়ার পর প্রায় শূন্যের কোটায় নেমে গেছে বিচারবহির্ভূত হত্যা। আইন ও সালিশ কেন্দ্র বলছে, সর্বশেষ দুই মাসে বন্দুকযুদ্ধে কেবল একজনের মৃত্যু হয়েছে। বিশেষজ্ঞরা বলছেন, তীব্র সামাজিক প্রতিক্রিয়ার কারণে আপাতত ক্রসফায়ার থেকে পিছু হটেছে বাহিনীগুলো। ভবিষ্যতে এ ধরনের হত্যা বন্ধে তদন্তের খোলনলচে বদলানোর সঙ্গে বিচারবহির্ভূত হত্যার পক্ষে জনসমর্থন ঠেকাতে দ্রুত বিচার নিশ্চিত করার বিকল্প নেই।

জুলাই মাসের শেষ দিনে, কক্সবাজারের টেকনাফে তল্লাশি চৌকিতে পুলিশের গুলিতে নিহত হন অবসরপ্রাপ্ত সেনা কর্মকর্তা সিনহা মোহাম্মদ রাশেদ খান। বিচারবহির্ভূত এই হত্যার খবরে তৈরি হয় তীব্র প্রতিক্রিয়া। দ্রুত গ্রেপ্তার হন অভিযুক্ত পুলিশ সদস্যরা। শুধু তাই-ই নয়, প্রায় সব সদস্যকে বদলি করে নতুনভাবে কার্যক্রম শুরু করেছে কক্সবাজার জেলা পুলিশ।

সিনহা হত্যার পর পার হয়েছে দুই মাস। এরমধ্যে আগস্টে বন্দুকযুদ্ধে প্রাণ গেছে একজনের। সেপ্টেম্বরে একটিও ক্রসফায়ার হয়নি, যা দেশের ইতিহাসে বিরল।