সিদ্ধিরগঞ্জে মটর শ্রমিক শুভকে পিটিয়ে হত্যার ঘটনায় মামলা: খুনীদের ফাঁসির দাবীতে বিক্ষোভ

সিদ্ধিরগঞ্জ প্রতিনিধি : মাদক ব্যবসায়ীদের পুলিশে ধরিয়ে দিয়েছে এমন সন্দেহে নারায়ণগঞ্জের সিদ্ধিরগঞ্জে শুভ (২০) নামে এক মটর শ্রমিককে লোহার রড দিয়ে পিটিয়ে হত্যার ঘটনায় থানায় মামলা দায়ের করা হয়েছে। শনিবার (১৫ ফেব্রুয়ারী) রাত সাড়ে ১১টায় নিহত শুভর মা শাহনাজ বেগম বাদী হয়ে ১৪ জনের নাম উল্লেখ করে এবং ৩/৪ জনকে অজ্ঞাত আসামী করে এ হত্যা মামলাটি দায়ের করেন।
আসামিরা হলো, আনিস (১৯), জনি (২৮), বিথি আক্তার (২৫), সজিব (১৯), টিটু (২৬), হাসু বেগম (৪০), অনিক (১৯), নজরুল (৪৮), শাকিল (২০), শান্ত (২৩), হৃদয় (১৯), রবিন (১৯), মারিয়া (২০) ও আতিক (২৫)।
থানা পুলিশ সূত্রে জানা যায়, শনিবার রাতে পুলিশ বিভিন্ন স্থানে অভিযান চালিয়ে এ হত্যাকান্ডের সাথে জড়িত অনিক, মারিয়া ও আতিককে গ্রেফতার করেছে। রবিবার (১৬ ফেব্রুয়ারী) দুপুরে গ্রেফতারকৃত আসামীদেরকে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য ৭ দিনের রিমান্ড চেয়ে আদালতে প্রেরণ করেছে।
সিদ্ধিরগঞ্জ থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) কামরুল ফারুক জানায়, শনিবার রাতে নিহত শুভর মা জাহানারা বেগম বাদী হয়ে একটি হত্যা মামলা দায়ের করেছে। রাতেই তিনজন আসামীকে গ্রেফতার করা হয়েছে। গ্রেফতারকৃতদেরকে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য ৭ দিনের রিমান্ড চেয়ে রবিবার দুপুরে আদালতে প্রেরণ করা হয়েছে। অন্যান্য আসামীদেরকে গ্রেফতার করতে অভিযান অব্যাহত রয়েছে।
এদিকে রবিবার (১৬ ফেব্রুয়ারী) দুপুর ৩টায় সিদ্ধিরগঞ্জের ঢাকা-চট্টগ্রাম মহাসড়কের শিমরাইল মোড় এলাকায় শুভর খুনীদের দ্রুত গ্রেফতার ও ফাঁসীর দাবীতে বিক্ষোভ মিছিল করেছে নারায়ণগঞ্জ জেলা মটর মেকানিক্স শ্রমিকরা। মিছিলটি শিমরাইল দক্ষিণপাড়া এলাকা থেকে শুরু করে ঢাকা-চট্টগ্রাম মহাসড়কের ডাচ্ বাংলা ব্যাংকের মোড় প্রদক্ষিণ করে কাঁচপুর ব্রীজ সংলগ্ন সাজেদা হাসপাতালের সামনে গিয়ে শেষ হয়। রহিম মিস্ত্রির নেতৃত্বে উক্ত মিছিলে উপস্থিত ছিলেন, মটর শ্রমিক সোহাগ, মামুন, এনামুল, রকি, হৃদয়, সাদ্দাম, ফারুক, সৌরভ, আল আমিন, রাজন, জাহানারা, সখিনা, কদবানু, শিউলি, আরিফসহ নারী-পুরুষসহ বিভিন্ন শ্রেনী পেশার লোক। এসময় খুনীদের ফাঁসির দাবীতে বিভিন্ন শ্লোগান দেয় তরা।
উল্লেখ্য,গত শুক্রবার রাত সাড়ে ৭ টার দিকে গ্যারেজ থেকে কাজ শেষ করে বাসায় যাচ্ছিলেন শুভ। পথিমধ্যে শিমরাইল মধ্যপাড়া আমির স্বর্ণকারের বাড়ীর পিছনে গলির রাস্তায় দেখা হয় ইয়াবা ব্যবসায়ী জনি ও আনিসসহ কয়েকজন মাদক ব্যবসায়ীর। এসময় তাকে একা পেয়ে কিছু দিন আগে জনির শ্যালক আনিসকে পুলিশে ধরিয়ে দিয়েছে সে সন্দেহে তারা তাকে রড দিয়ে পিটিয়ে গুরুতর রক্তাক্ত জখম করে। এলাকার কয়েকজন যুবক শুভকে উদ্ধার করতে গেলে মাদক ব্যবসায়ী জনি, আনিস, অনিক, শাকিল, হৃদয়, রবিন, হাসু বেগম, বিথি, সেলিম, টুনি, নজরুল ও সজিবসহ অজ্ঞাত কয়েকজন নারী-পুরুষ তাদের উপর হামলা চালায়। হামলায় ফারুক, জুম্মন, রফিক, মোজাম্মেল ও মিথুন আহত হয়। এসময় খুনীরা শুভর লাশ কাঁধে নিয়ে গুম করার জন্য চেষ্টা চালায়, যা ঘটনাস্থলের পাশর্^বর্তী একটি বাড়ীর সিসি ক্যামেরার ফুটেজে দেখা যায়। ওই মূহুর্তে স্থানীয় লোকজন সংঘবদ্ধ হয়ে এগিয়ে আসলে তারা পালিয়ে যায়। পরে আহতদের উদ্ধার করে প্রথমে স্থানীয় সাজেদা হাসপাতালে নিয়ে গেলে তাদের অবস্থা আশঙ্কাজনক হওয়ায় ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে প্রেরণ করা হয়। ঢাকা মেডিকেলে নিয়ে গেলে সেখানে চিকিৎসারত অবস্থায় শুভর মৃত্যু হয়। নিহত শুভ শিমরাইল দক্ষিনপাড়া এলাকার রেজা মেম্বারের বাড়ীর ভাড়াটিয়া মৃত আব্দুর রবের ছেলে। সে ঢাকা-চট্টগ্রাম মহাসড়কের কাঁচপুর সেতুর পূর্বপাড়ের সাজেদা হাসপাতাল সংলগ্ন একটি ট্রাকের গ্যারেজে মেকানিকের কাজ করতো।