সাভারে প্রভাবশালীদের দখলে থাকা সরকারী রাস্তা উদ্ধার করে মানুষের যাতায়াতের ব্যবস্থা করলেন ইউপি চেয়ারম্যান ফখরুল আলম সমর

বাবুল আহমেদ, সাভার উপজেলা প্রতিনিধি: সাভারে সরকারী রাস্তা বন্ধ করে ঘর নির্মাণ করার অভিযোগ উঠেছে এক প্রভাবশালী ব্যক্তির বিরুদ্ধে। এঘটনায় প্রায় ত্রিশটির ও বেশী পরিবার গৃহবন্দী হয়ে পড়েছে। ত্রিশটি পরিবারের শতাধিক মানুষ গেল কোরবানীর ঈদ থেকে মানবেতর জীবন যাপন করেছেন।

এদের মধ্যে সবচেয়ে বেশী দুর্ভোগে পড়েছেন গার্মেন্টস শ্রমিক ভাড়াটিয়ারা। সরকারী রাস্তা বন্ধ করে ঘর নির্মাণের ঘটনাটি ঘটেছে সাভারের তেঁতুলঝোড়া ইউনিয়নের নিমেরটেক এলাকায়। এলাকাবাসী জানায়, গেল কোরবানীর ঈদের আগে নিমেরটেক এলাকায় মানুষের যাতায়াতকারী সরকারী রাস্তা ইট দিয়ে বন্ধ করে আধাপাকা টিনের ঘর নির্মাণ করার উদ্যোগ নেন ওই এলাকার একটি হত্যা মামলার আসামী ও কুখ্যাত সন্ত্রাসী সফর আলী ও তার ছেলে ইউসুফ আলীসহ বেশ কয়েকজন।

পরে রাস্তাটি বন্ধ করায় প্রায় ত্রিশটিরও বেশী পরিবার আটকা পড়ে। রাস্তা বন্ধ থাকার ফলে ওই পরিবার গুলোর শিশুসহ নানা বয়সী মানুষ মানবেতর জীবন যাপন করে আসছিলো। পরে রাস্তা বন্ধ থাকার ফলে আটকে পড়া পরিবার গুলো এর প্রতিবাদ করলে সন্ত্রাসী সফর আলী ও তার ছেলে ইউসুফ পরিবার গুলোর সবাইকে হত্যা করে লাশ গুম করার হুমকি দিয়ে আসছিলো। যার ফলে ভুক্তভোগী পরিবারগুলো কষ্ট হলেও স্থানীয় জনপ্রতিনিধি বা প্রশাসনকে বিষয়টি জানাননি। এদিকে সরকারী রাস্তা বন্ধ করে ঘর নির্মাণ করার কথা শুনে আজ বিকেলে দ্রুত ঘটনাস্থলে গিয়ে সাভার মডেল থানা পুলিশের সহয়তা নিয়ে রাস্তাটি ভেঙ্গে দেন তেঁতুলঝোড়া ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান মোহাম্মদ ফখরুল আলম সমর।

এসময় ভুক্তভোগী পরিবারগুলো ও বিক্ষুব্ধ এলাকাবাসী সন্ত্রাসী সফল আলীর উপর ক্ষিপ্ত হলে পুলিশ গিয়ে জনতার হাত থেকে তাকে উদ্ধার করে তাকে থানায় নিয়ে যায়। এদিকে স্থানীয় জনপ্রতিনিধি ও পুলিশের উপস্থিতি টের পেয়ে সন্ত্রাসী সফর আলীর ছেলে ইউসুফ আলী পালিয়ে যায়। বিক্ষুব্ধ এলাকাবাসী রাস্তাটি এসময় ভেঙ্গে ফেলে ও আধা পাকা ঘর নির্মাণ সামগ্রী সড়িয়ে ফেলে মানুষের যাতায়াতের জন্য উন্মক্ত করে দেয়। প্রভাবশালী ও সন্ত্রাসীদের দখলে থাকা সরকারী রাস্তাটি উদ্ধার করে মানুষের জন্য যাতায়াত করার জন্য উন্মক্ত করে দেওয়ায় সন্তোষ প্রকাশ করেছেন এলাকাবাসী। এলাকাবাসী আরও জানায়,এগার বছর আগে সন্ত্রাসী সফর আলী ও তার ছেলেরা জমি দখলকে কেন্দ্র করে নিজের আপন ভাইয়ের স্ত্রী রিনা বেগমকে মধ্যযুগীয় কায়দার হত্যা করে। এঘটনায় নিহতের পরিবার তাদের বিরুদ্ধে থানায় মামলা দায়ের করলে আদালত থেকে জামিনে এসে আবারও তারা মানুষের উপর অত্যাচার শুরু করে।

এছাড়া ওই সন্ত্রাসী পরিবারের এসব অপকর্মের প্রতিবাদ করায় প্রায় চার জনকে কুপিয়ে জখম করারও অভিযোগ রয়েছে। এলাকাবাসী তাদের কঠোর শাস্তি দাবি করেছেন। এবিষয়ে তেঁতুলঝোড়া ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান মোহাম্মদ ফখরুল আলম সমর বলেন,বর্তমান ডিজিটাল যুগে কেউ সরকারী রাস্তা বন্ধ করে মানুষের যাতায়াত বন্ধ করে রাখতে পারবে না। মানুষের দুর্ভোগের কথা চিন্তা করে রাস্তাটি পাকা দেওয়াল ভেঙ্গে ফেলে মানুষের যাতায়াতের জন্য উন্মক্ত করে দেওয়া হয়েছে। তিনি আরও বলেন এসব কাজ যারাই করবে তাদের বিরুদ্ধে কঠোর ব্যবস্থা নেওয়া হবে। এদিকে এলাকাবাসী ওই সন্ত্রাসী পরিবারের অত্যাচারের হাত থেকে বাঁচতে তাদের বিরুদ্ধে গণ¯^াক্ষর দিয়েছে। বিষয়টি তদন্ত করে দোষীদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেওয়া হবে বলে জানিয়েছেন সাভার মডেল থানার ট্যানারি পুলিশ ফাঁড়ির ইনচার্য জাহিদুল ইসলাম।