সমালোচনায় নীরব, গেলেন ১ দিনের রিমান্ডে

প্রতারণার অভিযোগে ই-কমার্স প্রতিষ্ঠান কিউকমের হেড অব সেলস (কমিউনিকেশন অ্যান্ড পাবলিক রিলেশন) অফিসার হূমায়ুন কবির নিরব ওরফে আরজে নিরবকে একদিনের রিমান্ডে নিয়েছে পুলিশ।

শুক্রবার ভোরে আদাবর থানা এলাকার নবোদয় হাউজিংয়ের একটি বাসা থেকে আরজে নীরবকে গ্রেফতার করা হয়।

এদিকে আরজে নীরবের গ্রেফতারের খবরের পর সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে আলোচনা চলছে সবশেষ তার কার্যক্রম নিয়ে।

এরই মধ্যে ভাইরাল হয়েছে আরজে নীরবের একটি বেসরকারি টেলিভিশনের সরাসরি অনুষ্ঠানের কথোপকোথন।

যেখানে অনুষ্ঠান চলাকালে এক দর্শক তাকে ফোনে প্রশ্ন করে জানতে চায়, আচ্ছা তুমি এভাবে আর কয়টি মেয়ের জীবন নষ্ট করেছ? এই প্রশ্নে হতম্ভব হয়ে যান আরজে নীরব।

এরপর আরও কিছু কথা হয় সেই লাইভে যা প্রকাশ যোগ্য না।

এদিকে তাকে গ্রেফতারের পর পুলিশের ধারণা, কিউকমের প্রতারণার মাস্টারমাইন্ড হুমায়ূন কবির নিরব ওরফে আরজে নিরব।

তিনি সোশ্যাল মিডিয়া ও ডিজিটাল মাধ্যমে কিউকম সম্পর্কে প্রচারণা চালিয়ে সাধারণ মানুষকে আকৃষ্ট করতেন। আর তার কথায় বিশ্বাস করে সাধারণ মানুষ লাখ লাখ টাকা বিনিয়োগ করে পথে বসেছেন।

নিজের ফেসবুক অ্যাকাউন্টে কিউকম নিয়ে নানান প্রচারণা চালাতেন নিরব। গত ২৪ আগস্ট কিউকম নিয়ে একটি নিউজ শেয়ার দেন।

সেখানে তিনি লিখেন, ‘পুরো দেশ আর সারা দুনিয়া জুড়ে কিউকম ছড়াতে চাই, ইনশাআল্লাহ। আট বিভাগে নিজস্ব ডেলিভারি পয়েন্ট, ওয়ারহাউজ, কাস্টমার কেয়ার চালু করবে কিউকম’।

এ ছাড়াও নিজের ফেসবুক অ্যাকাউন্টে এমন অনেক স্ট্যাটাস আর নিউজ শেয়ারের মাধ্যমে কাস্টমারদের দৃষ্টি আকর্ষণ করতেন আরজে নিরব।

এমনকি কিউকমের প্রতারণার বিষয়টি সামনে আসার পরও গত ২২ সেপ্টেম্বর নিরব তার ফেসবুকে লেখেন, মনে হয় এই শিল্পটা বন্ধ না করে কেউ থামবে না।

একজন সৎ কর্মচারী হিসেবে বিপদের দিনে মালিকের পাশে থেকে কাজ করে যাচ্ছিলাম, যেন গ্রাহক তার টাকাটা ফেরত পায়।

সঠিক ভাবে গুছিয়ে কাজ করতে পারলে হয়তো তা সম্ভবও। কিন্তু মনে হচ্ছে, আপনারা পণ করে বসেছেন চাকরিটা না ছাড়া পর্যন্ত আমার পিছু ছাড়বেন না! তবে তাই হোক!

শুধু তাই নয়, কিউকমের বিরুদ্ধে অভিযোগের বিষয়ে জানতে গণমাধ্যমকর্মীরা যোগাযোগের চেষ্টা করায় সাংবাদিকদের তাচ্ছিল্য করে গত ২১ সেপ্টেম্বর নিজের ফেসবুকে পোস্ট করেন নিরব।