সব সরকারি হাসপাতালগুলোতে আলাদা সেল গঠন:স্বাস্থ্যমন্ত্রী

করোনাভাইরাস প্রতিরোধে সরকার সব ধরনের পদক্ষেপ নিয়েছে, দেশের সব সরকারি হাসপাতালে করোনা ভাইরাস চিকিৎসার জন্য আলাদা সেল গঠন করা হয়েছে। আজ (বৃহস্পতিবার) সচিবালয়ে নিজ দপ্তরে সংবাদ সম্মেলনে এসব তথ্য জানান স্বাস্থ্যমন্ত্রী ড. জাহিদ মালেক।

এসময় তিনি বলেন, ইতিমধ্যে চীনের নাগরিকদের বাংলাদেশে আসার জন্য অন-অ্যারাইভাল ভিসার ব্যবস্থা নেয়া হয়েছে, অর্থাৎ চীন থেকে যারা বাংলাদেশে আসতে চায় তাদেরকে বাংলাদেশের হাইকমিশনার বেইজিংয়ে গিয়ে বিশেষ একটি স্বাস্থ্য পরীক্ষা করতে হবে।

মন্ত্রী জানান, এখন পর্যন্ত বাংলাদেশে করোনা ভাইরাসের রোগি দেখা যায়নি, বিমানবন্দরে যে স্ক্রিনিংয়ের ব্যবস্থা রয়েছে, সেটা শুধু তাপমাত্রা নিরুপনের জন্য। তাই জ্বর ধরা পড়া না গেলেও অনেকে এই ভাইরাসে আক্রান্ত থাকতে পারে, তাই প্রত্যেককে এ ব্যাপারে সচেতন থাকতে হবে। তাদের চিকিৎসার জন্য সব ব্যবস্থা রয়েছে সরকারের।

মন্ত্রী বলেন, মাস্ক পড়া নিয়ে সারাদেশে যে হুজুগ শুরু হয়েছে, এটা থেকে বিরত থাকার আহ্বান জানানো হচ্ছে, কারণ সুস্থ্য মানুষকে মাস্ক পড়ার কোনো প্রয়োজন নাই, তাই মাস্কের দাম বাড়ারও কারণ নাই, যখন সবাইকে মাস্ক পড়ার প্রয়োজন হবে, তখন সরকারের পক্ষ থেকে তাদেরকে বলা হবে।
যে ৩১২ জন আশকোনায় আছে, তাদেরকে ১৪ তারিখে সেখান থেকে ছেড়ে দেয়া হবে বলেও জানান স্বাস্থ্যমন্ত্রী।

তিনি আরো জানান, বর্তমানে বাংলাদেশে সাড়ে সাত হাজার চীনা নাগরিক রয়েছে, তাদের মধ্যে কারো মধ্যেই এখনও এই ভাইরাসের লক্ষন দেখা যায়নি।

যে ১৭০ জন্য শিক্ষাত্রী উহান থেকে বাংলাদেশে আসতে চায়, তাদেরকে না আসার ব্যাপারে নিরুৎসাহিত করছে সরকার, তাদের কোনো সমস্যা হলে চীন সরকার তাদের ব্যাপারে যথাযথ ব্যবস্থা নিবে।
আশকোনায় যারা আছেন তাদেরকে ১৪ দিনই সেখানে থাকতে হবে, গত শনিবার তারা সেখানে থাকতে শুরু করেছে। তাদের হাইজিনের ব্যাপারে সব ব্যবস্থা নিয়েছে সরকার।