সংঘর্ষের ঘটনা নির্বাচনে কোন প্রভাব ফেলবে না: কাদের

রাজধানীর গোপীবাগে প্রচারণায় আওয়ামী লীগ ও বিএনপির মেয়র প্রার্থীর কর্মীর-সমর্থকদের মধ্যে সংঘর্ষের ঘটনা নির্বাচনে কোন প্রভাব ফেলবে না বলে মনে করেন, সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের। আজ (সোমবার) সচিবালয়ে সাংবাদিকদের তিনি এ কথা বলেন।

গতকালের সংঘর্ষের ঘটনাটি একটি বিচ্ছিন্ন ঘটনা উল্লেখ করে আওয়ামী লীগ সাধারণ সম্পাদক বলেন, ইলেকশনে প্রভাব পড়বে এমন ঘটনা ঘটেনি। নির্বাচনী পরিস্থিতি এবং আইনশৃঙ্খলা পরিস্থিতি ভাল আছে। সিসি ক্যামেরার ফুটেজ দেখে এ ঘটনায় দায়িদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেয়া হবে বলেও জানান তিনি।

সম্প্রতি রোহিঙ্গা ইস্যুতে নেদারল্যান্ডসের ‘ইন্টারন্যাশনাল কোর্ট অব জাস্টিসের’ (আইসিজে) অন্তর্বতীকালীন আদেশ বাংলাদেশের পক্ষে গেলেও চুড়ান্ত রায় হওয়ার পর মিয়ানমার তা কতটুকু মানবে, তা দেখার জন্য অপেক্ষা করতে হবে বলে জানানন ওবায়দুল কাদের।

তিনি বলেন, ইতিমধ্যে মিয়ানমার আইসিজে’র রায়ের নিরপেক্ষতা নিয়ে কথা বলা শুরু করেছে এবং নিজেদের পক্ষ নিয়ে কথা বলছে। তাই এখনই এই রায় নিয়ে বাংলাদেশের খুশি হওয়ার কারণ নাই। তবে রায় মানার জন্য মিয়ানমারের উপর বাংলাদেশ আন্তর্জাতিক চাপ অব্যাহত রাখবে বলে জানান সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের।

রোববার (২৬ জানুয়ারি) দুপুরে রাজধানীর গোপীবাগে ঢাকা দক্ষিণ সিটি কপোরেশনের নির্বাচনী প্রচারণায় ক্ষমতাসীন আওয়ামী লীগ ও বিএনপির মধ্যে সংঘর্ষের ঘটনা ঘটেছে। বেশ কিছু সময় পর পুলিশ পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনে। ওই সংঘর্ষের মধ্যে এক সংবাদকর্মীসহ ডজনখানেক লোক আহত হয়েছেন।

সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী বলেন, নির্বাচন কমিশনার মাহবুব তালুকদার বিএনপির সুরে সুর মেলাচ্ছেন। ভিন্নমত থাকতেই পারে, তবে ইসি মাহবুব তালুকদার কথায়-কথায় ঘরের খবর বাইরে প্রকাশ করে বিএনপির সুরে সুর মেলাচ্ছেন।

ইসিকে আরও কঠোর হওয়ার আহ্বান জানিয়ে তিনি বলেন, নির্বাচনের বর্তমান উৎসব মুখর পরিবেশে অব্যাহত রাখতে নির্বাচন কমিশনকেই উদ্যোগ নিতে হবে। আইন-শৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর সদস্যরা এখন কমিশনের নিয়ন্ত্রণে। যারা পরিবেশ নষ্ট করছেন, তাদের বিরুদ্ধে কমিশনই ব্যবস্থা নিতে পারেন। শেষ সময়ে আমরা কোনো প্রার্থীকে আটক বা হয়রানি করতে নির্দেশ দিচ্ছি না বলেও জানান মন্ত্রী।

রোহিঙ্গা ইস্যুতে গাম্বিয়ার মামলা সৎ সাহসের পরিচয় দিয়েছে উল্লেখ করে তিনি বলেন, তবে হেগের আদালতের অন্তবর্তী আদেশ মিয়ানমার মানবে কতটুক তা নিয়ে সংশয় রয়েছে।