সংকটে মানুষের পাশে থাকাই আওয়ামী লীগের ধর্ম: প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা

আওয়ামী লীগ জনগণের সংগঠন, চলমান দুর্যোগের সময় তা আবারো প্রমাণিত হয়েছে বলে মন্তব্য করেছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।
প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেছেন, যে কোন সংকটে মানুষের পাশে থাকাই আওয়ামী লীগের ধর্ম। করোনা পরিস্থিতিতে মানুষের সেবা করতে গিয়ে আওয়ামী লীগের ৫২২ জন নেতাকর্মী জীবন উৎসর্গ করেছেন। গণভবনে দলের কার্যনির্বাহী সংসদের বৈঠকে শেখ হাসিনা এ কথা বলেন। তিনি বলেন, দেশে অনেক রাজনৈতিক দল ও সংগঠন থাকলেও এই দু:সময়ে কেউ মানুষের পাশে দাঁড়ায়নি।
দীর্ঘ বিরতির পর অনুষ্ঠিত হলো আওয়ামী লীগের কেন্দ্রিয় কার্যনির্বাহী সংসদের বৈঠক। আওয়ামী লীগ সভাপতি প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সভাপতিত্বে এই বৈঠকে স্বাস্থ্যবিধি মেনে সীমিতসংখ্যক কেন্দ্রিয় নেতা অংশ নেন। করোনা ভাইরাস সংক্রমণ রোধে বাড়তি সতর্কতার অংশ হিসেবে মার্চের পর থেকে ভিডিও কনফারেন্সে বিভিন্ন কর্মসূচি অব্যাহত থাকলেও বন্ধ ছিলো কার্যনির্বাহীর বৈঠক।
গণভবনে অনুষ্ঠিত কার্যনির্বাহী সংসদের বৈঠকের শুরুতে দলীয় সভাপতি শেখ হাসিনা বলেন, রাজধানী থেকে শুরু করে তৃণমূলের ইউনিয়ন পর্যন্ত আওয়ামী লীগের নেতাকর্মীরা করোনা এবং ঘূর্ণিঝড়ের সময় মানুষের পাশে দাঁড়িয়েছে। অনেকেই জীবন উৎসর্গ করেছেন।
করোনা পরবর্তি অর্থনৈতিক ধাক্কা সামাল দেয়ার প্রস্তুতি রাখা হয়েছে বলে জানান প্রধানমন্ত্রী।
শেখ হাসিনা বলেন, দল এবং সহযোগী সংগঠনগুলোর সম্মেলনের মাধ্যমে কমিটি হলেও করোনার কারণে অনেক কাজ করা সম্ভব হয়নি। সমানের দিনগুলোতে সাংগঠনিক কার্যক্রম জোরদার করার তাগিদ দেন দলীয় সভানেত্রী।
স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয় ও স্বাস্থ্য অধিদফতর নিয়ে সমালোচনা হলেও তাদের দ্রুত ও আন্তরিক পদক্ষেপের কারণে করোনা পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে রাখা সম্ভব হয়েছে বলে জানান শেখ হাসিনা।