শেরপুরে স্কুলছাত্রী ধর্ষণ মামলায় যুবকের যাবজ্জীবন কারাদণ্ড

শেরপুরে নালিতাবাড়ী উপজেলার ধোপাকুড়া গ্রামের ব্র্যাক স্কুল পড়ুয়া চতুর্থ শ্রেণির এক ছাত্রীকে ধর্ষণের দায়ে আশরাফুল ইসলাম (২০) নামে এক যুবকের যাবজ্জীবন সশ্রম কারাদণ্ড দিয়েছেন আদালত।

মঙ্গলবার (১৫ ডিসেম্বর) বিকেলে শেরপুরের নারী ও শিশু নির্যাতণ দমন ট্রাইব্যুনাল এর বিচারক মো. আকতারুজ্জামান আসামি পলাতক থাকায় তার অনুপস্থিতিতে এ রায় দেন।

আশরাফুল নালিতাবাড়ীর ধোপাকুড়া গ্রামের আজগর আলীর ছেলে।

মামলার সূত্রে জানা যায়, ২০০৭ সালের ১৪ অক্টোবর ঈদের দিন বিকেলে বোনের বাড়ি থেকে নিজ বাড়ি ফিরছিলেন ধোপাকুড়া গ্রামের চতুর্থ শ্রেণি পড়ুয়া ওই স্কুলছাত্রী (১২)। পথিমধ্যে একই এলাকার বখাটে আশরাফুল ওই স্কুলছাত্রীকে ফুসলিয়ে নিয়ে যায় এবং স্থানীয় হামিদুল মিয়ার ঘরে নিয়ে জোরপূর্বক ধর্ষণ করে। একপর্যায়ে ওই ছাত্রীকে ধর্ষক আশরাফুল পার্শ্ববর্তী ঝিনাইগাতী এলাকায় তার বোনের বাড়িতে নিয়ে যায় এবং দ্বিতীয়বার ধর্ষণের চেষ্টা করে। তখন ওই ছাত্রী কান্নাকাটি শুরু করলে তাকে বোনের বাড়িতে রেখে বখাটে আশরাফুল গা ঢাকা দেয়। এ ঘটনায় ওই ছাত্রীর বাবা বাদী হয়ে পরদিন নালিতাবাড়ী থানায় নারী ও শিশু নির্যাতন দমন আইনে মামলা করলে পুলিশ আসামি আশরাফুলকে গ্রেফতার করে।

পরে তদন্ত কর্মকর্তা নালিতাবাড়ী থানার একজন উপ-পরিদর্শক (এসআই) ২০০৭ সালের ৩০ নভেম্বর বখাটে আশরাফুলকে অভিযুক্ত করে আদালতে চার্জশিট দাখিল করেন। আদালতে বিচারকাজ চলাকালে আসামি আশরাফুল জামিন নিয়ে পালিয়ে যায়। দীর্ঘ বিচারিক প্রক্রিয়ায় আট সাক্ষীর সাক্ষ্যগ্রহণ শেষে মঙ্গলবার আসামি আশরাফুলকে নারী ও শিশু নির্যাতন দমন আইনের ৯ (১) ধারায় (ধর্ষণের অভিযোগ) যাবজ্জীবন সশ্রম কারাদণ্ড ও ২০ হাজার টাকা জরিমানা অনাদায়ে ছয় মাসের কারাদণ্ড ঘোষণা করেন আদালত।