শত পরিবারকে ভোগ্যপন্য উপহার পৌঁছে দিল রুমঘাটা বয়েস ক্লাব

মোঃ রাশেদ, চট্টগ্রাম প্রতিনিধিঃ চট্টগ্রাম সিটি কর্পোরেশনের প্যানেল মেয়র ও কাউন্সিলর চৌধুরী হাসান মাহমুদ হাসনী বলেছেন, এই সংকটময় পরিস্থিতিতে আমাদের জীবন এবং জীবিকা দুটোই গুরুত্বপুর্ণ। তাই সরকার দুটোই যাতে সচল থাকে তার ব্যবস্থা করছেন।

এজন্য আমাদের দরকার সম্মেলিত উদ্যোগে এই মহামারি মোকাবেলা। তিনি বলেন শুধুমাত্র সরকারি সাহায্যের দিকে না তাকিয়ে যার যতটুকু সামর্থ আছে উপার্জনের চাকাকে সচল রাখার ব্রত নিয়ে কাজ করতে হবে। মেযর বলেন পুরো মানবজাতি এখন এক সংকটের মুখোমুখি। সম্ভবত এটি আমাদের দেখা সবচাইতে বড় সংকট।

আগামীর এই পৃথিবী কেমন হবে তা নির্ভর করছে আগামী কয়েক সপ্তাহের উপর। আমাদের অর্থনীতি, রাজনীতি ও সংস্কৃতিও নির্ভর করছে আমাদের নিজেদের উপর। আমাদেরকেই এই পৃথিবীর দায়িত্ব নিয়ে কাজ করতে হবে। এই দুর্যোগ একসময় থেমে যাবে। মানবজাতি টিকে যাবে। আমাদের অধিকাংশই বেঁচে থাকবো। কিন্তু আমরা বাস করবো এক ভিন্ন পৃথিবীতে। এক নতুন পৃথিবীতে, নতুন অভিজ্ঞতায়। দূর্যোগ পরবর্তী থেকে যাবে আমাদের কর্ম, আমাদের যার যার অবদান।

আগামী ইতিহসে আমরা যাতে মানবিক হিসেবে জায়গা করে নিতে পারি সেজন্য নগররের সামাজিক সংগঠনগুলোকে তাদের অবস্থান থেকে মানবতার কাজে এগিয়ে আসার আহবান জানাচ্ছি। আজ সকালে রুমঘাটা বয়েস ক্লাবের উদ্যোগে অসহায় পরিবারের মাঝে ভোগ্যপন্য উপহার সামগ্রী বিতরণ কালে তিনি এসব কথা বলেন। আজ ১ শত পরিবারের মাঝে এই ভোগ্যপন্য উপহার সামগ্রী বিতরণ করা হয়। আজ প্রদত্ত উপহার সামগ্রীরমধ্যে ছিল, চাল, ডাল, আলু, পেয়াজ, তেলসহ নিত্য ভোগ্যপন্য।

এসময় প্যানেল চৌধুরী হাসান মাহমুদ হাসানী, প্রধান উপদেষ্টা আমানুল্লাহ আল ছগির ছুট্টু,রূমঘাটা বয়েজ ক্লাবের সভাপতি চৌধুরী সাজিদ মুস্তফা আসফি,রূমঘাটা কল্যান কমিটির সভাপতি খলিলুর রহমান খান,সহ-সভাপতি মতিউর রহমান খান, সাধারন সম্পাদক অধ্যাপক ডাক্তার সাদেক সাইফুর রহমান। মতিউর রহমান খাঁন, রুমঘাটা বয়েস ক্লাবের সভাপতি সাজ্জাদ মোস্তফা আশফী প্রমূখ উপস্থিত ছিলেন। এই করোনা ভাইরাস প্রাদুর্ভাবের পর থেকে সংগঠনটি এলকায় জীবণুনাশক পানি ছিটানো, জনসাধারণকে হাত ধোয়ার ব্যবস্থা, বহিরাগত প্রবেশ, জনসচেতনতা মূলক প্রচারাভিযান সহ নানা সামাজিক কর্মকান্ড পরিচালনা করে আসছে। সংগঠনের নেতৃবৃন্দ জানান এই কার্যক্রম চলমান থাকবে।