শত্রুর মুখে ছাই দিয়ে এগিয়ে যাবে দেশ: প্রধানমন্ত্রী

দেশে-বিদেশে নানা অপপ্রচার ও ষড়যন্ত্র চলছে উল্লেখ করে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেছেন, শত্রুর মুখে ছাই দিয়ে এগিয়ে যাবে বাংলাদেশ।

মঙ্গলবার (২ ফেব্রুয়ারি) সকালে একাদশ জাতীয় সংসদের একাদশতম অধিবেশনের সমাপনী বক্তব্যে সংসদ নেতা বলেন, সুনির্দিষ্ট লক্ষ্য নিয়ে দেশকে এগিয়ে নিচ্ছে তার সরকার। অধিবেশনের সমাপ্তি সূচক আয়োজনে প্রধানমন্ত্রীর বক্তব্যে উঠে এসেছে, করোনা পরিস্থিতি, রাজনৈতিক সংকট ও অর্থনৈতিক বাস্তবতা।

শেষ হলো জাতীয় একাদশ জাতীয় সংসদের শীতকালীন অধিবেশন। করোনা পরিস্থিতির মধ্যেও স্বাস্থ্য সতর্কতা ও সাবধানতা অবলম্বন করে পরিচালিত এ সংসদে পাস হয়েছে ৬টি আইন। পাশাপাশি টানা সাধারণ আলোচনা চলেছে রাষ্ট্রপতির ভাষণের ওপর।

বিধি অনুযায়ী মঙ্গলবার (২ ফেব্রুয়ারি) সকালে স্পিকার ড. শিরিন শারমিন চৌধুরীর সভাপতিত্বে এ অধিবেশনে সমাপনী বক্তব্য দেন সংসদ নেতা শেখ হাসিনা।

অধিবেশনের সমাপনী দিনে প্রধানমন্ত্রীর বক্তব্যে উঠে আসে রাজনৈতিক ইস্যু। তিনি বলেন, বহুদলীয় গণতন্ত্রে কালো অধ্যায় বিএনপি প্রতিষ্ঠা করে। আজকে বিএনপির নেতৃত্বের অভাব। পলাতক আসামি যখন একটা দলের নেতা। তাদের ওপর সাধারণ মানুষের আস্থা থাকে না।

করোনা মহামারির আঘাত সামলে, অর্থনীতি ঘুরে দাঁড়িয়েছে জানিয়ে শেখ হাসিনা বলেন, সময় হলেই খুলে দেওয়া হবে শিক্ষা প্রতিষ্ঠান।

তিনি বলেন, করোনা এখন অনেক নিয়ন্ত্রণে। আরেকটু নিয়ন্ত্রণে আসলে স্কুল কলেজ খুলে দেওয়া হবে। তখন ছেলে-মেয়েরা পড়াশুনা করতে পারবে। ভ্যাকসিন নিয়ে অনেক কথা। অনেক ব্যঙ্গ। ভ্যাকসিন আসায় সেই নিজেই উত্তর দিয়েছেন।

দেশের উন্নয়ন কর্মকাণ্ডে বিএনপির কোনো সাড়া না পাওয়ায় ক্ষোভ জানান প্রধানমন্ত্রী। তিনি বলেন, দেশবিরোধী ষড়যন্ত্র চলছে নানা ব্যঞ্জনায়।

তিনি বলেন, মিথ্য তথ্য দিয়ে মানুষকে বিভ্রান্ত করা বিএনপির জন্মগত চরিত্র। বাংলাদেশ এগিয়ে যাচ্ছে, এগিয়ে যাবে। শত্রুর মুখে চাই দিয়ে এগিয়ে যাবে। দেশে ও বিদেশে নানাভাবে অপ্রচার চলছে। আমি বিশ্বাস করি, সততা নিয়ে কাজ করলে সেই কাজের সুফল জনগন পেলে সেখানেই আমাদের প্রশান্তি।

ভ্যাকসিন নিয়ে দেশে ব্যঙ্গ হলেও বাংলাদেশ করোনা নিয়ন্ত্রণের প্রশংসা বিশ্ব দরবারে অর্জন করেছে বলেও জানান প্রধানমন্ত্রী।