শঙ্কার মধ্যেও বন্ধ হচ্ছে না ঢাকা-লন্ডন ফ্লাইট

সরকারের সর্বোচ্চ পর্যায় থেকে এখনো কোনো নির্দেশনা পাওয়া যায়নি উল্লেখ করে সামরিক বিমান চলাচল কর্তৃপক্ষের (সিভিল এভিয়েশন) চেয়ারম্যান এয়ার ভাইস মার্শাল মো. মফিদুর রহমান জানিয়েছেন নতুন কোনো নির্দেশনা না পাওয়া পর্যন্ত যুক্তরাজ্যে ফ্লাইট পরিচালনা বন্ধ হচ্ছে না। নতুন নির্দেশনা পেলে সে অনুযায়ী সিদ্ধান্ত হবে বলেও জানান তিনি।

বুধবার (২৩ ডিসেম্বর) সকালে হযরত শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরের অভ্যন্তরীণ বহির্গমন লাউঞ্জ ও সৈয়দপুর বিমানবন্দরের আগমনী হলের উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে এ কথা জানান তিনি।

করোনার দ্বিতীয় ধাক্কায় টালমাটাল যুক্তরাজ্য। এরই মধ্যে দেশটি থেকে ছড়িয়ে পড়েছে নতুন ধরনের করোনাভাইরাস। এর ফলে যুক্তরাজ্যের সঙ্গে বিমান চলাচল সাময়িকভাবে বন্ধ করে দিয়েছে জার্মানি, ইতালি, বেলজিয়াম, আয়ারল্যান্ড, তুরস্ক এবং কানাডাসহ বিশ্বের অন্তত ৪০টি দেশ। এ তালিকায় আছে প্রতিবেশি দেশ ভারতও।

বিশ্বের উন্নত দেশগুলো যেখানে সর্বোচ্চ সর্তকতা অবলম্বন করেছে সেখানে বাংলাদেশও গভীরভাবে পর্যবেক্ষণ করছে সার্বিক পরিস্থিতি।

বেসামরিক বিমান চলাচল কর্তৃপক্ষের চেয়ারম্যান জানালেন, সংক্রমণ ঝুঁকি থাকলেও আপাতত বন্ধ হচ্ছে না ফ্লাইট। তবে যুক্তরাজ্য ফেরত যাত্রীদের আলাদাভাবে স্ক্রিনিং করা হবে। প্রয়োজনে পিসিআর টেস্টও করা হবে।

অনুষ্ঠানে বেসামরিক বিমান পরিবহন ও পর্যটন প্রতিমন্ত্রী মাহবুল আলী জানান, যুক্তরাজ্য ফেরত যাত্রীদের ক্ষেত্রে বিশেষ কোয়ারেন্টাইনের ব্যবস্থা নেয়া হয়েছে। দেশের তিনটি আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে এই নির্দেশনা কঠোরভাবে পালনের নির্দেশ দেয়া হয়েছে বলেও জানান তিনি।

বেসামরিক বিমান পরিবহন ও পর্যটন মন্ত্রণালয় জানিয়েছে, করোনার কারণে এ পর্যন্ত বিমান পরিচালনায় বাংলাদেশের আর্থিক ক্ষতি ছাড়িয়েছে ৩ হাজার কোটি টাকা আর পর্যটন খাতের ক্ষতি হয়েছে প্রায় ২ হাজার কোটি টাকা।