লিভার ক্যান্সারে আক্রান্ত ছাত্রলীগ নেতা হাসান বাচতে চায়

মাহফুজ বাপ্পী,শরণখোলা প্রতিনিধি: বাগেরহাটের শরণখোলা উপজেলা ছাত্রলীগের আহবায়ক মো. হাসান মীর দুরারোগ্য লিভার ক্যান্সারে আক্রান্ত। চারদলীয় জোট সরকারের আমলে নির্মম নির্যাতন আর মামলা -হামলার শিকার রাজপথের এ সৈনিক এখন নিস্তব্ধ-নিথর পড়ে আছে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিকেলের (বিএসএমএমইউ) বেডে।

ত্যাগী এই ছাত্রলীগ নেতার পাশে পরিবার ছাড়া এখন আর কেউ নেই। তার চিকিৎসার জন্য অনেক টাকার প্রয়োজন। যা তার মধ্যবিত্ত পরিবারের পক্ষে বহন করা সম্ভব হচ্ছেনা। তাই ছাত্রলীগ নেতা হাসানকে বাচাতে প্রধানমন্ত্রীর সহযোগীতা চেয়েছে তার অসহায় পরিবার। শরণখোলা উপজেলা ভূমি অফিসের চতুর্থ শ্রেণির কর্মচারী মো. নাছির উদ্দিন মীরের ছেলে হাসান মীর। হাসান স্কুলজীবন থেকেই ছাত্রলীগের বিভিন্ন পদে দায়িত্ব পালন করেছেন । বর্তমানে উপজেলা ছাত্রলীগের আহবায়কের দায়িত্বে রয়েছেন।

দলকে সু-সংগঠিত করে বিএনপি-জামায়াতের শাসনামলে রাজপথে থেকে আন্দোলন করেছেন। সেই সময়ে বহুবার হামলার শিকার হয়েছেন তিনি । ২০০২ সালে তৎকালিন ছাত্রদলের নেতারা হাসানকে ধরে নিয়ে উপজেলার জিলবুানিয়া গ্রামের একটি বাড়িতে আটকে রেখে দিনভর নির্মম নির্যাতন চালায়। তখন তার একটি পা ভেঙে ফেলে এবং ওই অবস্থায় তাকে পুলিশের হাতে তুলে দেয়া হয়। ভাঙা পা নিয়ে টানা দুই মাস হাজতবাস করে হাসান। জোট সরকারের আমলে তার বিরুদ্ধে প্রায় ২০টি মামলা হয়। এর মধ্যে পঁাচটি মামলায় মাসের পর মাস জেল খাটতে হয়েছে তাকে। তবে তার এই দুঃসময়ে কাউকে পাশে পাওয়া যাচ্ছেনা।

পরিবার সূত্রে জানা যায়, বুকে ব্যাথা নিয়ে গত নভেম্বর (২০১৯) মাসের শেষের দিকে হাসান ভারতে চিকিৎসার জন্য যান। সেখানে চিকিৎসায় পাচ লাখ টাকার মতো ব্যয় করে ১৩ ডিসেম্বর ফিরে আসেন। তাতে কোনো পরিবর্তন না হয়ে দিন দিন শারিরীক অবনতি ঘটায় ২৬ ডিসেম্বর ঢাকা ল্যাব এইড হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। তার চিকিৎসা অত্যন্ত ব্যয়বহুল হওয়ায় সেখান থেকে ৩০ ডিসেম্বর নিয়ে যাওয়া হয় বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিক্যাল বিশ্ববিদ্যালয়ে।

বর্তমানে বি.এস.এম.এম.ইউ’র পঞ্চম তলার ডি-ব্লকের ১৩নম্বর বেডে চিকিৎসাধীন রয়েছেন হাসান মীর। হাসানের বাবা মো. নাছির উদ্দিন মীর জানান, এপর্যন্ত হাসানের চিকিৎসায় প্রায় ১৫লাখ টাকা খরচ হয়েছে। এখন তার পক্ষে চিকিৎসা খরচ চালানো সম্ভব হচ্ছেনা। টাকার অভাবে ধীরে ধীরে ছেলেটি মৃত্যুর দিকে ধাবিত হচ্ছে। দলের জন্য জীবন, যৌবন, অর্থ সবই দিয়েছে তার ছেলে। এখন তার পাশে কাউকেই পাওয়া যাচ্ছেনা। তাই ছেলেকে বঁাচাতে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সহযোগীতা চেয়েছেন তিনি । উপজেলার ছাত্রলীগের যুগ্ম-আহবায়ক সাইফুল ইসলাম জীবন ও খায়রুল ইসলাম শরীফ জানান, ছাত্রলীগের আহবায়ক হাসান মীরের চিকিৎসায় তহবলি গঠনের চেষ্টা চলছে।