লঞ্চের ধাক্কায় নিখোঁজের ৩দিন পর জেলে আল আমীনের লাশ উদ্ধার

ফারহান-উর-রহমান সময়, তজুমদ্দীন প্রতিনিধি: ভোলার তজুমদ্দিন সংলগ্ন মেঘনায় ঢাকা টু হাতিয়া রুটে চলাচলকারী লঞ্চ এম ভি ফারহান ৪ লঞ্চের ধাকায় জেলে ট্রলার ডুবির ঘটনায় জেলের লাশ নিখোঁজের ৩দিন পর উদ্ধার করলো কোস্টগার্ড।

পরে উদ্ধারকৃত লাশ পুলিশের কাছে হস্তান্তর করেন কোস্টগার্ড সদস্যরা। নিহতের পরিবারকে জেলা প্রশাসনের পক্ষ থেকে আর্থিক অনুদান দেয়া হয়। কোস্টগার্ড সুত্রে জানা যায়, প্রতিদিনের ন্যায় মেঘনায় টহল পরিচালনা করার সময় বুধবার দুপুর ২ টায় ধরনীরখাল সংলগ্ন মেঘনায় নিখোঁজের ৩দিন পর জেলের লাশ ভাসতে দেখেন।

পরে তারা লাশটি উদ্ধার করে চৌমুহনী লঞ্চ ঘাটে এনে পুলিশের কাছে হস্তান্তর করেন। পুলিশ জেলের লাশ গ্রহণ করে থানায় নিয়ে আসেন। পরে লাশের ময়না তদন্তের জন্য ভোলা মর্গের প্রেরনের প্রস্তুতি নিচ্ছেন পুলিশ। তাৎক্ষনিক জেলা প্রশাসকের পক্ষে উপজেলা নির্বাহি কর্মকর্তা নিহত জেলে আল আমীনের (১৯) পরিবারকে ১০ হাজার টাকা আর্থিক অনুদান প্রদান করবে বলে জানান। ময়না তদন্তের রিপোর্ট পাওয়ার পর আইনগত ব্যবস্থা গ্রহণ করার কথা জানান প্রশাসন।

তজুমদ্দিন কোস্টগার্ড কন্টিনজেন্ট কমান্ডার মো. আসাদ বলেন, প্রতিদিনের ন্যায় গতকাল বুধবার মেঘনায় টাহল পরিচালনার সময় ধরনীরখাল সংলগ্ন মেঘনায় নিখোঁজ জেলের লাশ ভাসতে দেখে উদ্ধার করে পুলিশ নিকট হস্তান্তর করি। তজুমদ্দিন থানার অফিসার ইনচার্জ এস এম জিয়াউল হক বলেন, নিহত যুবকের লাশ কোস্টগার্ড উদ্ধার করে আমাদের নিকট হস্তান্তর করলে ময়না তদন্তের জন্য মর্গে প্রেরণের ব্যবস্থা করা হয়।

ময়না তদন্তের রিপোর্ট পাওয়ার পর আইনগত ব্যবস্থা নেয়া হবে। উপজেলা নির্বাহি কর্মকর্তা পল্লব কুমার হাজরা বলেন, নিহতের পরিবারকে জেলা প্রশাসকের পক্ষ থেকে তাৎক্ষনিক ১০ হাজার টাকা নগদ অনুদান দেয়া হবে। পরবর্তীতে তার পরিবারকে আরো সহযোগীতা করা হবে বলেও জানান তিনি।