লক্ষ্মীপুরে ১০ নাম্বার মহাবিপদ সংকেত, লক্ষ্মীপুর ভোলা নৌ রুটে ফেরিচলাচল বন্ধ

 নুরুল আমিন দুলাল ভূঁইয়া, লক্ষ্মীপুর জেলা প্রতিনিধি:  উপকূলের দিকে ধেয়ে আসা ঘূর্ণিঝড় ‘আম্পান’ এর কারণে লক্ষ্মীপুর-ভোলা নৌ রুটে ফেরি চলাচল বন্ধ রয়েছে। এতে দুই পারে আটকা পড়েছে কয়েকশ’মালবাহী ট্রাক, যাত্রীবাহী যানবাহন। মঙ্গলবার সকাল থেকে মেঘনায় ফেরি চলাচল বন্ধ করে দেয় বিআইডবিউটিএ কর্তৃপক্ষ। বিআইডবিউটিসি’র লক্ষ্মীপুর মজুচৌধুরী ঘাটের সহ ব্যবস্থাপক মো.কাউছার জানান, উপকূলের দিকে ধেয়ে আসা ঘূর্ণিঝড় ‘আম্পান’ এর কারণে দুর্ঘটনা এড়াতে লক্ষ্মীপুর-ভোলা নৌরুটে ফেরিঘাট বন্ধ রাখা হয়েছে। পরবর্তী নির্দেশ না দেওয়া পর্যন্ত ফেরি বন্ধ থাকবে।

 

অপরদিকে ঘূর্ণিঝড় ‘আম্পান’ প্রতিরোধে গত রোবাবার বিকেলেই লক্ষ্মীপুরে জেলা প্রশাসন প্রস্তুতিমূলক সভা করেছে। মানুষ যাতে সামাজিক দূরত্ব বজায় রেখে আশ্রয় কেন্দ্রগুলোতে থাকতে পারে সে ব্যাবস্থাসহ জেলা প্রশাসন থেকে ২০১টি র্ঘূণিঝড় আশ্রয়ন কেন্দ্র প্রস্তুত রাখা হয়েছে। জেলায় ২টি ও প্রতিটি উপজেলায় হটলাইন চালু করা হয়েছে। দুযোর্গ পরবর্তী সময়ে রাস্তাঘাট ও বিদ্যুৎ ব্যবস্থা ঠিক রাখার জন্য ফায়ার সার্ভিস ও বিদ্যুৎ বিভাগ প্রস্তুতি নিচ্ছে। মানুষকে সতর্ক করতে নদী তীরবর্তী এলাকায় মাইকিং শুরু করেছে প্রশাসন।

জেলা প্রশাসক অঞ্জন চন্দ্র পাল জানান, করোনা মহামারির সময় উপকূলবাসীর জন্য আরো বিপদ হয়ে আসছে ঘূর্ণিঝড় ‘আম্পান’। র্ঘূণিঝড় প্রতিরোধে পর্যাপ্ত ত্রাণ মজুদ রয়েছে। এ ছাড়া গবাদি পশুর জন্য আলাদাভাবে আশ্রয় ও খাবারের ব্যবস্থা রাখা হবে। বিভিন্ন এলাকায় শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের পাকা ভবনগুলো আশ্রয়কেন্দ্র হিসেবে ব্যবহারসহ জন্য প্রস্তুতসহ খোলা রয়েছে ২০১টি আশ্রয় কেন্দ্র।