লক্ষ্মীপুরে-পুলিশ বাহিনীকে জনবান্ধব করতে বিট পুলিশিং কার্যক্রম শুরু

নুরুল আমিন দুলাল ভূঁইয়া,  লক্ষ্মীপুর জেলা প্রতিনিধি:  লক্ষ্মীপুরে পুলিশ বাজিনীকে গণমুখী ও জনবান্ধব করার জন্য লক্ষ্মীপুরের রায়পুরে গত বুধবার পৌরসভায় দুটি ওয়ার্ড ও একটি ইউনিয়নে পুলিশ সদস্যদের নিয়ে চালু হয়েছে বিট পুলিশিং এর কার্যক্রম।

উপজেলার প্রতিটি ওয়ার্ড ও ইউনিয়নে বিট পুলিশিং কার্যক্রম মনিটরিং, তদারকির জন্য পুলিশ সদস্যদের সাথে স্থানীয় জনপ্রতিনিধিরা কো-অপারেট করা হবে। এবং ভৌগোলিক দূরত্ব ও সুনির্দিষ্ট কাঠামোবদ্ধ কর্মসূচির অভাবে অনেক ক্ষেত্রে সাধারন জনগণ পুলিশের সেবা থেকে বঞ্চিত হয়। এবং পুলিশের প্রতি জনসাধারনের একটা ভ্রান্ত ধারণা তৈরি হয়!

সেবার মানষীকতায় পুলিশ-জনতা সম্পর্কোন্নয়নে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালনের জন্য, প্রতিটি সাধারন নাগরিকের পুলিশের সেবাপ্রাপ্তির নিশ্চয়তা প্রদানের জন্য, পৌরসভা, ইউনিয়ন, ওয়ার্ড পর্যায়ে জনপ্রতিনিধিদের সাথে নিয়ে প্রত্যন্ত অঞ্চলে ও পুলিশের সেবা পৌঁছে দেওয়ার জন্য কার্যক্রম ইতোমধ্যে শুরু হয়েছে। বাংলাদেশ পুলিশের আইজিপি ড.বেনজীর আহমেদের আদেশ ও নির্দেশনা অনুযায়ী,

চট্রগ্রাম রেঞ্জের ডিআইজি খন্দকার গোলাম ফারুখের নির্দেশনা অনুযায়ী, রায়পুর পৌরসভায় এবং উপজেলার বামনী ইউনিয়নে বিট পুলিশিং কার্যক্রমের মধ্য দিয়ে যাত্রা শুরু হয় ।প্রত্যন্ত এলাকাতে পুলিশের নিয়মিত উপস্থিতি নিশ্চিত করা সহ, স্থানীয় জনপ্রতিনিধিদের সাথে সমন্বয় করে, আলোচনা করে পুলিশের সেবার মান আরো গতিশীল করার লক্ষে দ্রুততম সময়ের মধ্যে কাজ সম্পাদন করা হবে।

যাতে করে গ্রামের দালালচক্র ও অপরাধীদের দৌরাত্ম্য বৃদ্ধি না পায় সেই লক্ষ নিয়ে কাজ করে এগিয়ে যেতে হবে। এই কার্যক্রমের ব্যপারে রায়পুর থানার ওসি আবদুল জলিল বলেন, পুলিশ সুপার ড: এএইচএম কামরুজ্জামানের প্রতি ধন্যবাদ ও কৃতজ্ঞতা জানাই।

এসপি সাহেবের নির্দেশনা অনুযায়ী বিট কর্মকর্তা এলাকাবাসীর সঙ্গে মতবিনিময় ও তাদের আইনশৃঙ্খখলা জনিত সমস্যা সমাধানসহ নির্ধারিত দায়িত্বগুলো পালন করে বিট পুলিশিং কার্যক্রম গতিশীল রাখার প্রত্যয় ব্যক্ত করেন।

এবিষয়ে সকল সহযোগিতার জন্য উপজেলা চেয়ারম্যান, পৌরসভার মেয়র, সকল ইউপি চেয়ারম্যান, পৌরসভার কাউন্সিলর, সাংবাদিক ও সুশীল সমাজের প্রতিনিধিদের নিয়ে বৈঠক ইতোমধ্যে সম্পন্ন করা হয়েছে।