লক্ষ্মীপুরে ঢাকা-চট্রগ্রামমুখী মানুষের ভিড়, মানা হচ্ছে না স্বাস্থ্যবিধি, অতিরিক্ত ভাড়া আদায়ে ক্ষোভ

নুরুল আমিন দুলাল ভূঁইয়া, লক্ষ্মীপুর জেলা প্রতিনিধি:  লক্ষ্মীপুরে সোমবার (১ জুন) থেকে রয়েছে ঢাকা ও চট্রগ্রামমুখী মানুষের প্রচন্ড ভীড়। সকাল থেকে বাসে করে বাসটার্মিনাল থেকে দেশের বিভিন্ন স্থানে ছেড়ে যাচ্ছে লোকজন নিয়ে যাত্রীবাহী বাস।

দীর্ঘদিন লকডাউনে থাকা গণপরিবহণ পূনরায় চালু হওয়ায় বাসে করে যাত্রীরা বিভিন্ন স্থানে ফিরছেন। সিএনজি ও লোকাল বাসে করে জেলার মজুচৌধুরী ঘাটে ও চাঁদপুরে লঞ্চ চালু হওয়ায় ফেরিতে সাধারণ যাত্রীদের ভিড় কমেছে। তবে, ছোট-বড় কোনও পরিবহনেই শতভাগ স্বাস্থ্যবিধি মানা হচ্ছে বলে জানিয়েছেন যাত্রীরা।

একাধিক যাত্রী জানিয়েছেন, শতভাগ স্বাস্থ্যবিধি রক্ষা করা হচ্ছে না। ভাড়া বৃদ্ধির কারনে অনেক যাত্রী হতাশার মাঝে বলেন হুট করে ভাড়া বৃদ্ধি এ যেন মরার ওপর খাড়ার গাাঁ। বাস ও লঞ্চে বেশ ভিড় পরিলক্ষিত হয়। লঞ্চ থেকে নামার সময় যাত্রীরা গাদাগাদি করে ঘাটে নামছেন। আবার স্পিডবোটে আসন বিন্যাসের কারণে শারীরিক দূরত্ব রক্ষা করা মোটেও সম্ভব নয়।

বাসে জীবাণুনাশক ছিটাতে দেখা যায় নি। তবে লাইনে দাঁড়াতে গিয়ে যাত্রীরা দূরত্ব রক্ষা করতে পারছেন না। বাসগুলোতে সিটের বিপরীতে কম যাত্রী নেওয়া হচ্ছে। লক্ষ্মীপুর বাসটার্মিনাল এলাকার চালক মোঃ আলম বলেন, স্বাস্থ্যবিধি রক্ষা করে কম যাত্রী নিয়ে বাস চালাচ্ছি। বাস ভাড়া বাড়ানোর পরও প্রতি ট্রিপে আমাদের প্রায় দুই হাজার টাকা ক্ষতি হয়।

তারপরও এই সময়ে এভাবেই বাস চালাবো। এ দিকে, ট্রাফিক পুলিশের কার্যালয় থেকে জানানো হয়, সোমবার সকাল থেকে জেলা সদরসহ পাঁচ উপজেলা রায়পুর, রামগন্জ, কমলনগর ও রামগতি থেকে কুমিল্লা,ফেনী, চাঁদপুর, নোয়াখালি, ঢাকা ও চট্রগ্রামগামী জোনাকী পরিবহন, ঢাকা এক্সপ্রেস, শাহী পরিবহন,রয়েল, ইকোনা, উপকুল লোকাল বাস আনন্দ পরিবহন ও সিএনজি বিভিন্ন স্থানে যাতায়াত শুরু করেছে।

স্বাস্থ্যবিধিসহ সরকারি সকল নির্দেশনা মেনে চলার জন্য মালিক ও চালকদের বলা হয়েছে।