লক্ষ্মীপুরের রায়পুরে ব্যবসায়ীকে অপহরন করার চেষ্টার মামলায় পাঁচ জন কারাগারে

নুরুল আমিন দুলাল ভূঁইয়া, লক্ষ্মীপুর জেলা প্রতিনিধি:  লক্ষ্মীপুরের রায়পুরে এক মামলার বাদীকে মারধর করে অজ্ঞাত স্থানে নিয়ে অপহরনের চেষ্টা করার মামলায় ৫ যুবককে বৃহস্পতিবার বিকেলে (৬ আগষ্ট)-আদালতের মাধ্যমে কারাগারে পাঠিয়েছে পুলিশ।

গত বুধবার রাতে (৫ আগষ্ট) রায়পুর উপজেলার কেরোয়া ইউপির মীরগন্জ বাজারে এঘটনা ঘটেছে বলে জানা যায়। এ ঘটনায় মামলার আসামীরা হলেন, রায়পুরের পুর্ব কেরোয়া গ্রামের মোঃ শামিম (২৬), সদর উপজেলার হামছাদী ইউপির মন্ডলতুলী গ্রামের মোঃ শিহাব (২৫), মোঃ মিরাজ (২৬), মোঃ রাসেল (২৫) ও মোঃ সোহেল (২৬)। গ্রেপ্তারকৃতরা একেকজন বিশ্ববিদ্যালয়ের ছাত্র, চাকুরিজীবি ও ব্যবসায়ী হন।

অভিযুক্ত মামলার সুত্র থেকে ও বাদী মোঃ মামুন এ প্রতিবেদককে জানায়, রায়পুরের মীরগন্জ বাজারের পাশে মন্ডলতুলী গ্রামের গ্রেপ্তারকৃত যুবকরা প্রায় দুই বছর আগে ব্লাড ডোনেট নামে একটি ক্লাব করে প্রতিষ্টিত করে। এলাকাবাসি জানায় এ ক্লাবের নামে তারা একতাবদ্ধ হয়ে মীরগন্জ বাজার, তার আশেপাশের এলাকায় ত্রাসের সৃষ্টি ও কিশোর গ্যাং তৈরী করে।

একাধিক সূত্র থেকে জানা যায় ক্লাবের নামে এদের কার্যক্রমে বাজার ব্যবসায়ীরা, গ্রামবাসী, শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের ছাত্র ছাত্রীরা সব সময় আতংকিত থাকতেন। গত বুধবার রাতে ওই বাজারের মামুন নামের এক ব্যবসায়ীকে তুচ্চ ঘটনায় মারধর করে দোকান থেকে তুলে নেয়ার চেষ্টা করে ওই ৫ যুবক। এসময় মামুনের চিৎকারে আসপাশের অন্যব্যবসায়ীরা এগিয়ে আসলে তারা পালিয়ে যায়। গতকাল বৃহস্পতিবার সকালে ক্ষতিগ্রস্থ ব্যবসায়ী মামুন বাদী হয়ে ওই ৫ যুবকের নামসহ অজ্ঞাত আরো ১৫/২০ জনের নামে রায়পুর থানায় মামলা দায়ের করেন।

এ ব্যপারে অভিযুক্ত যুবকরা বক্তব্য দিতে রাজি না হওয়ায়, তাদের এক আত্নীয় ফারুক হোসেন বলেন, মামলার বাদী ও আসামীরা একে-অপরের বন্ধু। সামান্য বিষয় নিয়ে কথাকাটাকাটি হয়েছে। রায়পুর থানার ওসি আবদুল জলিল বলেন, এক ব্যবসায়ীকে মারধর ও তুলে নেয়ার চেষ্টার-মামলায় ৫ যুবককে আদালতের মাধ্যমে কারাগারে পাঠানো হয়েছে। তাদের বিরুদ্ধে এলাকায় ত্রাস সৃষ্টিসহ বিভিন্ন অভিযোগও রয়েছে।