রৌমারীতে দুই মেধাবী কলেজ ছাত্রকে মিথ্যা মামলায় ফাঁসানোর অভিযোগ প্রত্যাহারে মানববন্ধন

রফিকুল ইসলাম, রাজিবপুর প্রতিনিধি : পূর্ব শত্রুতার জেরে ইয়াবা ট্যাবলেট দিয়ে মুশফিক জামান মামুন ও হেমায়েত উল্লাহ হিমু ঢাকা কলেজের দুই ছাত্রকে বিজিবি’র গোয়েন্দা বিভাগের সদস্য জসিম উদ্দিন ও সিরাজুল ইসলাম গ্রেফতার করে মামলায় ফাঁসানোর প্রতিবাদে মানববন্ধন করা হয়েছে।

শনিবার সকাল সাড়ে ১১ টায় রৌমারী উপজেলার সায়দাবাদ বাজার সংলগ্ন ডিসি রাস্তায় ঘন্টাব্যাপি এ মানববন্ধন করে ওই দুই ছাত্রের আত্মীয়-স্বজনসহ স্থানীয় জনগন। উল্লেখ্য, উপজেলার যাদুরচর ইউনিয়নের আলগারচর গ্রামের সৈয়দজ্জামালের ছেলে মুশফিকুজ্জামান মামুন ও সাদেক হোসেনের ছেলে হেমায়েত উল্লাহ হিমু এবং বিজিবি’র গোয়েন্দা শাখার সদস্য জসিম উদ্দিনের সাথে গত এক মাস আগে বাকবিতন্ড হয়েছিল।

ওই বাকবিতন্ডের জের ধরে এক মাস পর গত ২২ জুন সায়দাবাদ বাজারে উপস্থিত বাজারের জনতার সামনে গ্রেফতার করে আাড়ালে নিয়ে আটককৃতদের পকেটে ইয়াবা ট্যাবলেট ঢুকিয়ে নিয়ে যায় বাঘারচর বিজিবি ক্যাম্পে। মামলায় গ্রেপ্তার দেখানো হয় জামালপুর জেলার কদমতলা নামক স্থানে। আটকের সময় প্রত্যক্ষদর্শী সায়দাবাদ বাজারের ব্যবসায়ী মোশারফ হোসেন, জুলহাস ও স্বপন আহমেদ জানান, সায়দাবাদ বাজারে আমাদের সামনে গ্রেপ্তার করা হয়েছে, কিন্তু দেখানো হয়েছে কদমতলায়।

ঘটনা প্রশ্নবিদ্ধ। জানা গেছে, ওই দুই ছাত্র কোনদিন ধুমপানও করেন নি। এমন নেক্কারজনক ঘদটনার প্রতিবাদে ছাত্রের পিতা সৈয়দ জামান বিজিবি সদস্যদের প্রতি অভিযোগ তোলেন এবং বিভিন্ন দপ্তরে লিখিত অভিযোগ দায়ের করেছেন। নি:স্বর্গ মুক্তির দাবীতে দফায় দফায় মানবন্ধন করছেন আটককৃতদের স্বজনরা। উক্ত মানববন্ধনে বক্তব্য রাখেন, যাদুরচর ইউনিয়ন আওয়ামীলীগের সভাপতি সাখওয়াত হোসেন সবুজ, যাদুরচর ইউপি চেয়ারম্যান সরবেশ আলী, আব্বাস উদ্দিন ও ছেলের বাবা আলহাজ্ব সৈয়দ জামান প্রমূখ। বক্তাগণ বক্তব্যে আসামীদের বিরুদ্ধে মিথ্যা মামলা প্রত্যাহার ও নিঃশর্ত মুক্তির দাবী জানান।