রৌমারী সীমান্তে বিজিবি ও গ্রামবাসীর সংঘর্ষে ৪ বছরের শিশু আহত

রফিকুল ইসলাম, রাজিবপুর (কুড়িগ্রাম) প্রতিনিধি : উৎকোচ না দেওয়ায় ও ছাগল ধরাকে কেন্দ্র করে বিজিবি ও গ্রামবাসির মধ্যে সংঘর্ষ। বিজিবির এফএসের লাঠির আঘাতে নুসরাত জাহান (৪) নামের এক শিশু আহত হয়। আহতকে উদ্ধার করে রৌমারী হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। ঘটনাটি ঘটেছে গতকাল সোমবার দুপুরের দিকে কুড়িগ্রাম জেলার রৌমারী উপজেলার যাদুরচর ইউনিয়নের আলগারচর গ্রামে। গ্রামবাসি সুত্রে জানা গেছে, উপজেলার দক্ষিণ আলগার চর গ্রামের কিছু ছাগল ১০৭০-৭১ পিলারের মাঝামাঝি দিয়ে নোম্যান্সলেন্ড এ ঘাস খাইতে যায়।
এ সময় টহলরত বিজিবির এফএস আল আমিন ও জসিম আহমেদ গ্রামের কয়েকজন লোকের মাধ্যমে ছাগলগুলো ধরে আনতে নির্দেশ দেয় এবং তারা ছাগলগুলো ধরে আনে। ছাগলের মালিকরা ছাগল ফেরত চাইতে গেলে এফএস সদস্য উৎকোচ দাবী করলে উভয়ের মধ্যে বাকবিতন্ডতার সৃষ্টি হয়। বিষয়টি ক্যাম্পে সংবাদ দিলে বালিয়ামারী ও খেওয়ারচর ক্যাম্পের বিজিবি সদস্যরা দক্ষিণ আলগার রবিউলের বাড়িতে অর্তকিত ভাবে হামলা চালায়। এ সময় ৪ বছরের শিশু নুসরাত জাহানের মাথায় প্রচন্ড আঘাত পায়। পরে স্বজনরা রক্তাত্ত অবস্থায় উদ্ধার করে রৌমারী হাসপাতালে ভর্তি করান।
এব্যাপারে মেডিকেল অফিসার ডা: সেলিম আহমেদ বলেন, শিশুটির মাথায় প্রচন্ড আঘাত পেয়ে ফেটে গেছে। ক্ষতস্থানে কয়েকটি সেলাই দেওয়া হয়েছে। যাদুরচর ইউপি চেয়ারম্যান সরবেশ আলী জানান, ভুলবুঝাবুঝির এক পর্যায় অনাকাঙ্খিত ঘটনাটি ঘটে। আমি ঘটনাস্থলে গিয়ে সিও’র সাথে কথা বলে উভয়কে শান্ত করি এবং নতুন করে কোন সমস্যার সৃষ্টি না হয় এ জন্য তাৎক্ষণিক মিমাংসা করে দেওয়া হয়েছে।
এ ব্যাপারে জামালপুর ব্যাটালিয়ন (৩৫ বিজিবি) এর অধিনায়ক লে: কর্নেল এসএম আজাদ বলেন, ছাগল আটককে কেন্দ্র করে গ্রামবাসিরা বিজিবির উপর চড়াও হয়। এতে অনাকাঙ্খিত ঘটনার সৃষ্টি হলে আমি দ্রুত বিষয়টি যাদুরচর ইউপি চেয়ারম্যানের মাধ্যমে নিষ্পত্তি করে দেই। আপাতত পরিস্থিতি শান্ত। এছাড়াও সীমান্ত এলাকার গরু, ছাগল ও ভেড়া নোম্যান্সলেন্ড এ গেলে ভারতীয় বিএসএফ আমাদেরকে অভিযোগ দেয়। তাই সীমান্ত বাসিকে ভারতে গরু, ছাগল না দেওয়ার জন্য অনুরোধ করি।