রেমা কালেঙ্গা বিটে বন কর্মীদের পিটিয়ে দুই গাছ পাচারকারী ছিনতাই, গুলি

সুশীল চন্দ্র দাস, হবিগঞ্জ জেলা প্রতিনিধি: হবিগঞ্জের চুনারুঘাটের রেমা-কালেঙ্গা বনাঞ্চল থেকে দীর্ঘদিন ধরে গাছ পাচার করে আসছে একটি সংঘবদ্ধ চোরচক্র। মঙ্গলবার চক্রের দুই সদস্যকে আটক করলেও বন প্রহরিদের মারপিট করে ছিনিয়ে নেয়া হয়েছে।

এ সময় প্রহরিরা গুলি ছুড়ে আত্মরক্ষা করেন। এ ব্যাপারে মঙ্গলবার রাত সাড়ে ১২টার দিকে কালেঙ্গা বিট কর্মকর্তা এটিএম সিদ্দিকুর রহমান বাদি হয়ে ৪০ জনের বিরুদ্ধে চুনারুঘাট থানায় অভিযোগ দায়ের করেছেন। অভিযোগে তিনি উল্লেখ করেন, মঙ্গলবার বিকেলে কালেঙ্গা রেঞ্জের ছনবাড়ি বিটের সংরক্ষিত বনের ভেতর গাছ কাটছিল কয়েকজন পাচারকারী।

এ সময় বন প্রহরিরা সেখানে অভিযান চালিয়ে চোরচক্রের দুই সদস্যকে আটক করেন। আটককৃতরা হলো, উপজেলার লাতুরগাঁও গ্রামের আব্দুল হামিদের ছেলে মো. ফারুক মিয়া ও আব্দুল নূরের ছেলে তৌফিক মিয়া। আটককৃতদের হবিগঞ্জ কোর্টে নিয়ে যাওয়ার পথে উপজেলার গাতাবাড়ি এলাকায় ৪০/৫০ জনের একটি সংঘবদ্ধ গাছচোর চক্র দেশিয় অস্ত্র-সস্ত্র নিয়ে অতর্কিত হামলা চালায়।

এ সময় আটককৃত দুই পাচারকারীকে ছিনিয়ে নেয় তারা। চোরচক্র সদস্যদের অতর্কিত হামলায় আত্মরক্ষার্থে বন প্রহরিরা দুই রাউন্ড গুলি ছুড়েন। পরে পাচারকারীরা পালিয়ে যায়। এ ঘটনায় আহতরা হলেন, বন টহল বাহিনীর সদস্য মো. সাদেক মিয়া (৪৫), বন প্রহরী সেলিম হোসেন (৫০), শিতাংশু কৈরী (৩৫), টহল বাহিনীর সদস্য তাজুল ইসলাম (৩৫),

ছিদ্দিক মিয়া (৩৮), ওলি মিয়া (৩৫)। তাদের চুনারুঘাট উপজেলা স্বাস্থ্যকমপ্লেক্সে ভর্তি করা হয়। এ ব্যাপারে কালেঙ্গা রেঞ্জ কর্মকর্তা মো. খলিলুর রহমান বলেন, ‘গাছ চোর সংঘবদ্ধ চক্রটি দীর্ঘদিন ধরে বন থেকে গাছ পাচার করে আসছে। মঙ্গলবার দুই গাছচোরকে আটক করলে বন প্রহরিদের মারপিট করে আসামীদের ছিনিয়ে নিয়েছে চক্রের সদস্যরা।

অভিযোগ পাওয়ার বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন চুনারুঘাট থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) আলী আশরাফ। তিনি বলেন, ‘বন প্রহরিদের উপর হামলা করে দুই পাচারকারীকে ছিনিয়ে নেয়ার অভিযোগে থানায় লিখিত অভিযোগ দেয়া হয়েছে। বিষয়টি আমরা ক্ষতিয়ে দেখছি।