রেড জোন ঘোষিত উত্তর কাট্টলী, এলাকাবাসী আর আপনাদের পাশে আছি মেয়র আ জ ম

মোঃ রাশেদ, চট্টগ্রাম প্রতিনিধিঃ চট্টগ্রাম সিটি কর্পোরেশনের মেয়র আ জ ম নাছির উদ্দীন বলেছেন, সরকারি সাধারণ ছুটির ৬৬ দিন অতিবাহিত করেছি আমরা। এরই মধ্যে শুধুমাত্র চট্টগ্রাম নগরীতে আক্রান্তের হার দাঁড়িয়েছে ৩ হাজার ৫শ‘র মতন এবং মৃত্যু হয়েছে ১১৭ জনের। শুধুমাত্র ১০নং উত্তর কাট্টলী ওয়ার্ডে ৭৮ হাজার জনগণের মধ্যে গত ১৪ দিনের হিসাব মতে ১৪৫ জন করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত ও মৃত্যুবরণ করেছে ৭ জন, যা-কোন ভাবেই কাম্য নয়।

এমন পরিস্থিতিতে করোনা আক্রান্ত ও মৃত্যুর হারে লাগাম টানতে ঘরে অবস্থানের কোন বিকল্প নাই। দেশের সার্বিক পরিস্থিতি বিবেচনায় করোনা প্রতিরোধে গঠিত কেন্দ্রীয় টেকনিক্যাল কমিটির সিদ্ধান্ত অনুসারে আগামীকাল মঙ্গলবার রাত ১২ টা ১মিঃ থেকে লকডাউন কার্যকর করা হচ্ছে নগরীর ১০নং উত্তর কাট্টলী ওয়ার্ডে, যা আগামী ২১ দিন পর্যন্ত বহাল থাকবে। এই লকডাউন চলাকালীন সময়ে রেড জোন ঘোষিত এলাকায় প্রবেশ ও বাইরে যাওয়া সম্পূর্ণ নিষেধাজ্ঞ থাকবে। প্রধান সড়কে কোন প্রকার যাত্রী উঠা-নামা চলবে না, তবে রাত ১২ টার পর পণ্যবাহী গাড়ী চলাচল উম্মুক্ত থাকবে।

এলাকার মানুষের সার্বিক সহায়তার জন্য থাকবে সিটি কর্পোরেশনের একাধিক কন্ট্রোলরুম ও এলাকাভিত্তিক সেচ্ছাসেবক টীম। বিশেষ কোন প্রয়োজনে কন্ট্রোলরুমের নির্দিষ্ট নম্বরে যোগাযোগ করে মিলবে প্রয়োজনীয় সহযোগিতা। সেচ্ছাসেবক দ্বারা প্রতিটি ঘরে জিনিসপত্র পৌছে দেয়া হবে। চসিকের পক্ষ থেকে চলবে দিনভর প্রচারাভিযান ও লিফলেট বিতরণ। আজ সকালে নগরীর ১০ নং উত্তর কাট্টলীতে রেডজোন ঘোষাণার পূর্বদিনে জনসচেতনতা মূলক পরিদর্শনে সিটি মেয়র এসব তথ্য জানান। এ সময় তিনি মাইকিং করে এলাকাবাসীকে লকডাউন পূর্ববর্তী ও পরবর্তী বিষয়ে প্রয়োজনীয় দিকনির্দেশনায় বলেন, লকডাউন এখন সময়োচিত একটি পদক্ষেপ।

তাই নিজেদের সুরক্ষায় ঘরে অবস্থান করে করোনা মহামারীকে নিয়ন্ত্রণ করতে হবে। সেজন্য আপনারা দৈনন্দিন প্রয়োজন সীমিত করে ঘরে অবস্থান করুন। অহেতুক কোন গুজবে কান না দিয়ে সরকারি স্বাস্থ্যবিধি ও চসিকের নির্দেশনা মেনে চলুন। প্রয়োজনের বাইরে কেনাকাটা করা থেকেও বিরত থাকুন। যতটুকু প্রয়োজন ততটুকুই সংগ্রহ করুন। তিনি আরো বলেন, এলাকার নিম্মবিত্তদের মাঝে খাদ্য সহায়তার পাশাপাশি জরুরী চিকিৎসা সেবার ব্যবস্থা করা হবে। মুমূুর্ষ রোগী পরিবহনে থাকবে এ্যাম্বুলেন্স। মোট কথা ঘরে থাকার নিশ্চয়তা দেবেন এলাকাবাসী আর আপনাদের প্রয়োজন মেটাতে আছি আমরা।

এই ওয়ার্ডটি ছাড়াও নগরীর আরো ৯টি ওয়ার্ড রেড জোন হিসাবে চিহ্নিত করা হয়েছে। ধাপে ধাপে সেগুলোও লকডাউন করা হবে। তবে পূর্ব ঘোষণা ছাড়া এইসব এলাকা লকডাউন করা হচ্ছে না। এ সময় চসিক প্যানেল মেয়র ও কাউন্সিলর ড. নিছার উদ্দিন আহমেদ মঞ্জু, সংরক্ষিত ওয়ার্ড কাউন্সিলর আবিদা আজাদ, মেয়রের একান্ত সচিব মোহাম্মদ আবুল হাশেম, আকবর শাহ থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা মোস্তাফিজুর রহমান, পাহাড়তলী থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা মাঈনুর রহমান, কাট্টলী ওয়ার্ড আওয়ামী লীগ নেতা লোকমান আমিন, ইকবাল চৌধুরী, মো. দুলদুল, সুদীপ কুমার দাশ, মো. ছগির আলম, নুর আলম, হায়দার আলী, মুজিবুর রহমান, রোমন উদ্দিন, হারুন উর রশিদ প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন।