রায়পুরে প্রবাসীর স্ত্রীকে কুপিয়ে জখম, আ’লীগ নেতাসহ ৪২ জনের নামে মামলা

নুরুল আমিন দুলাল ভূঁইয়া, লক্ষ্মীপুর জেলা প্রতিনিধি:  লক্ষ্মীপুরের রায়পুরে দুই লাখ চাঁদা না দেয়ায় সালমা বেগম (৩০) নামে এক প্রবাসীর স্ত্রী ও গৃহবধুকে কুপিয়ে জখমসহ বসতঘর ভাংচুর করেছে স্থানীয় আ’লীগ নেতা-কর্মীরা। রক্তাক্ত জখম অবস্থায় সালমাকে উদ্ধার করে লক্ষ্মীপুর সরকারি হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। গৃহবধু সালমা একই এলাকার সৌদি প্রবাসী নাজমুল হোসেনের স্ত্রী। ঘটনাটি ঘটেছে রোববার দুপুরে উপজেলার দক্ষ্মীন চরবংশী ইউপির চরকাছিয়া গ্রামে মিয়ার হাট বাজার এলাকায়।

রাতে আহতের ননদ রনিফা বেগম বাদী হয়ে চরবংশী ইউনিয়ন আ’লীগ সহ-সভাপতি দাদন মোল্লা,সবুজ হাওলাদার ও রুহুল আমিন চৌকিদার, হাসিম চৌকিদারসহ ৩০ জনের উল্লেক সহ আরও অক্তত ১২ জনের নামে থানায় হত্যার চেষ্টা, টাকা লুট ও বসতঘর ভাংচুরের মামলা করেছেন। এ ঘটনায় এলাকায় চরম উত্তেজনা বিরাজ করছে।। হাসপাতালে চিকিৎসাধীন আহত সালমা ও ইউপি সদস্য নজরুল ইসলাম জানান, আমাদের পরিবারের সাথে আ’লীগ নেতা ,দাদন মোল্লা গংদের সাথে পুর্ব বিরোধ চলে আসছে। কয়েকদিন ধরে ২ লাখ টাকা চাঁদা দেয়ার জন্য সালমাকে চাপ সৃষ্টি করে আসছে, সবুজ হাওলাদার ও হাসিম চৌকিদার।

৯ জুন বিদেশ থেকে আসা ১ লাখ ২০ হাজার টাকা রায়পুরের একটি ব্যাংক থেকে উত্তোলন করে বাড়ীতে এনে আলমাড়িতে রাখে গৃহবধু সালমা বেগম। এ টাকার কথা জানতে পেরে রোববার দুপুরে ,দাদন মোল্লা নেতৃত্বে ১০/১২ সশস্র লোকজন সালমার বাড়ীতে হানা দিয়ে ২ লাখ টাদা চাঁদা দিতে চাপসৃষ্টি করে। চাঁদা দিতে অস্বীকার করলে সালমাকে দা ও সেনি দিয়ে এলোপাতাড়ী কুপিয়ে জখম করে তারা । এ সময় বসতঘর ভাংচুর করে আলমাড়িতে থাকা এক লাখ ২০ হাজার টাকা নিয়ে পালিয়ে যায়। এতে সালমার হাত, পা, মাথাসহ শরীরের কয়েক স্থানে মারাত্নক জখম হয়। আমরা থানায় ৩০ জনের নামে মামলা করেছি।

লুট হওয়া টাকা উদ্ধারসহ আসামীদের গ্রেপ্তার করে শাস্তির দাবি জানাই। এঘটনায় আ’লীগ নেতা দাদন মোল্লা মোবাইলে বলেন, এ ঘটনা সম্পুর্ন মিথ্যা। আমরা কিছুই জানিনা। রায়পুর চরবংশী হাজিমারা ফাঁড়ি থানার ওসি পরিদর্শক আবুল কালাম আজাদ বলেন, সংবাদ শুনে ঘটনাস্থলে যাওয়ার আগেই অভিযুক্তরা পালিয়ে গেছে। মামলা হলে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেয়া হবে।