রায়পুরে টিউবওয়েলের পানি নেয়াকে কেন্দ্র করে হামলা ভাঙচুর আহত ৭

 নুরুল আমিন দুলাল ভূঁইয়া, লক্ষ্মীপুর জেলা প্রতিনিধি: লক্ষ্মীপুরের রায়পুর উপজেলায় টিউবওয়েলের পানি নেয়া কেন্দ্র করে দিনমজুর পরিবারের ওপর হামলা ও বসতঘর ভাঙচুর করার অভিযোগ পাওয়া গেছে। এ সময় একই পরিবারের সাতজনকে পিটিয়ে আহত করা হয়েছে।

ঘটনাটি ঘটেছে বুধবার রাতে উপজেলার দক্ষিণ চরবংশী ইউপির আখন্দবাজার এলাকায়। আহতরা হলেন– চা দোকানদার বৃদ্ধ মাইনুদ্দিন মোল্লা, তার স্ত্রী খতেজা বেগম, মেয়ে হোসনে আরা বেগম, নারগিস ও জেসমিনসহ সাতজন। আহত মাইনুদ্দিন মোল্লা জানান, প্রায় ২৫ বছর আগে তাদের বাবা টাকার বিনিময়ে বসতঘরের সামনে সরকারি ডিপটিউবওয়েল স্থাপন করেন।

গত দুই মাস ধরে পানি নেয়া কেন্দ্র পাশের বাড়ির প্রভাবশালী মুসলিম, জয়নাল ও দুলাল আখন্দসহ তাদের পরিবারের সদস্যরা ঝগড়া ও মারামারি করে আসছেন। বুধবার সন্ধ্যায় পানির জন্য গেলে মুসলিমের পরিবার টিউবওয়েলের মাথা নিয়ে যায়।

প্রতিবাদ করলে মুসলিম, জয়নাল ও দুলাল আখন্দ তার পরিবারের নারীদের পিটিয়ে আহত করে এবং বসতঘরে ভাঙচুর চালায়। পরে বাজারে চা দোকানে গিয়ে বৃদ্ধ মাইনুদ্দিনকে তারকাটা সংযুক্ত লাঠি দিয়ে পিটিয়ে রক্তাক্ত জখম করে। স্থানীয় লোকজন চার নারীসহ অসহায় দিনমজুর মাইনুদ্দিনকে উদ্ধার করে সরকারি হাসপাতালে ভর্তি করেছেন।

এ ঘটনা ওয়ার্ডের মেম্বারের কাছে বিচার চাইলে তিনি উল্টো ধমক দিয়ে ঘটনাস্থল থেকে চলে যান। এ ঘটনায় অভিযুক্ত মুসলিম, দুলাল ও জয়নাল আখন্দ বলেন, সরকারি কলের পানি আনতে গিয়ে আমাদের ঘরে নারীদের গালমন্দ করা হয়। ঘটনার সময় আমাদের হাতাহাতি হয়েছে। বসতঘর ভাঙচুর করিনি। কল নিয়ে গেছি, আবার দিয়ে দিয়েছি।

দক্ষিণ চরবংশী ইউপি সদস্য আলী হোসেন বলেন, সরকারি টিউবওয়েলের পানি নিয়ে দুপক্ষের মধ্যে মারামারির ঘটনাটি মীমাংসার চেষ্টা চলছে। আমার বিরুদ্ধে আনা মাইনুদ্দিনের অভিযোগ মিথ্যা। রায়পুর থানার ওসি আবদুল জলিল বলেন, দুপক্ষের মধ্যে মারামারি হয়েছে শুনেছি। ক্ষতিগ্রস্তরা লিখিত অভিযোগ দিলে ব্যবস্থা নেয়া হবে।