রাহুল গান্ধীকে গ্রেফতার করলো পুলিশ

দিল্লি-উত্তরপ্রদেশ মহাসড়কে নাটকীয় ঘটনার পর গ্রেফতার হলেন কংগ্রেস নেতা রাহুল গান্ধী এবং প্রিয়াঙ্কা গান্ধী ভদ্রা। হাথরসে গণধর্ষণের শিকার তরুণীর পরিবারের সঙ্গে দেখা করতে যাচ্ছিলেন তারা। এসময় জনসমাবেশে নিষেধাজ্ঞা ভঙ্গের অভিযোগে তাদের গ্রেফতার করে পুলিশ। বৃহস্পতিবার (১ অক্টোবর) ভারতীয় সংবাদমাধ্যম এনডিটিভি এ তথ্য জানায়।

গ্রেফতারের আগে রাহুল গান্ধী সাংবাদিকদের জানান, পুলিশ আমাকে আঘাত করেছে। ধাক্কা দিয়েছে। আমার উপর লাঠিচার্জ করা হয়েছে। মাটিতে ফেলে দিয়েছে আমাকে। আমি জানাতে চাই, শুধু কি নরেন্দ্র মোদি দেশে হাঁটতে পারবেন? সাধারণ মানুষ কি দেশে চলাফেরা করতে পারবে না? আমাদের গাড়ি থামিয়ে দেয়া হয়েছে। তাই আমরা পায়ে হেঁটে হাথ্রাসের উদ্দেশে রওনা দিয়েছি।

গত মঙ্গলবার (২৯ সেপ্টেম্বর) গণধর্ষণের শিকার ওই তরুণীর মৃত্যু হয়। রাতের আঁধারে উত্তরপ্রদেশ পুলিশ ওই তরুণীর মরদেহ দাহ করতে বাধ্য করেছে, এমন একটি খবর ছড়িয়ে পড়লে দেশজুড়ে ক্ষোভের সৃষ্টি হয়।

রাহুল-প্রিয়াঙ্কা আগেই ঘোষণা করেছিলেন হাথরসে যাওয়ার কথা। কিন্তু বৃহস্পতিবার উত্তরপ্রদেশে ১৪৪ ধারা জারি করে প্রশাসন।

আনন্দবাজার জানায়, তারপরও কর্মসূচি বাতিল করেননি কংগ্রেস নেতারা। রাহুল-প্রিয়াঙ্কা দলের গাড়ি আটকে দেওয়া হলে উত্তরপ্রদেশ-দিল্লি মহাসড়ক ধরে হাঁটতে শুরু করেন তারা। তাদের যেখানে আটকানো হয়, সেখান থেকে হাথরসের দূরত্ব প্রায় ১৪০ কিলোমিটার। সেখান থেকে কিছুদূর এগোনোর পরই তাদের আটকায় পুলিশ। শুরু হয় ধস্তাধস্তি। এসময় রাহুলকে গলাধাক্কা দিতেও দেখা যায় পুলিশকে। পরে তিনি গ্রেফতার হন।