রাশিয়ার করোনা ভ্যাকসিন ‘রোগ প্রতিরোধ ব্যবস্থা গড়তে সক্ষম’

স্বেচ্ছাসেবকদের শরীরে অ্যান্টিবডি তৈরি করতে সক্ষম হয়েছে রুশ ভ্যাকসিন স্পুটনিক-ভি। তীব্র প্রতিযোগিতার মধ্যে ১১ আগস্ট বিশ্বের প্রথম ভ্যাকসিন হিসেবে ‘স্পুটনিক ভি’ অনুমোদনের ঘোষণা দেয় রাশিয়া।

ল্যানসেটের প্রতিবেদনে বলা হয়, ভ্যাকসিনটি নিয়ে ৪২ দিন করে দুটি ট্রায়াল চালানো হয়েছে। প্রত্যেকবারই অংশ নিয়েছেন ৩৮ জন সুস্থ ও প্রাপ্তবয়স্ক স্বেচ্ছাসেবী। পরীক্ষায় তাদের মধ্যে কোনও পার্শ্ব প্রতিক্রিয়া দেখা যায়নি। বরং তাদের শরীরে অ্যান্টিবডি তৈরি হওয়ার ব্যাপারে নিশ্চিত হওয়া গেছে।

গত সপ্তাহ থেকে স্পুটনিক-ভি নিয়ে পরবর্তী ধাপের পরীক্ষা শুরু হয়েছে। এ বছরের অক্টোবর কিংবা নভেম্বরে প্রাথমিক ফল হাতে পাওয়ার ব্যাপারে আশা করা হচ্ছে।

অপরদিকে, ট্রায়ালের মাধ্যমে প্রাপ্ত ফলাফলের প্রশংসা করেছে মস্কো। যদিও রাশিয়ার কাজের গতি দেখে কয়েকজন পশ্চিমা বিশেষজ্ঞ উদ্বেগ প্রকাশ করেছেন যে, রাশিয়া হয়তো কিছু পদক্ষেপ এড়িয়ে গেছে।

গত মাসে রুশ প্রেসিডেন্ট ভ্লাদিমির পুতিন বলেছেন, ভ্যাকসিনটি প্রয়োজনীয় সব পরীক্ষায় পাস করেছে এবং তার এক কন্যার শরীরেও তা প্রয়োগ করা হয়েছে।

এদিকে, ওই রিপোর্টে বলা হয়, জুন ও জুলাই মাসে স্পুতনিক-৫ ভ্যাকসিনটির দু’টি ট্রায়াল হয়েছে। প্রতিটি ট্রায়ালে ৩৮ জন স্বাস্থ্যবান স্বেচ্ছাসেবী অংশ নিয়েছেন, যাদের ওই ভ্যাকসিনের একটি ডোজ দেওয়ার তিন সপ্তাহ পর আরেকটি ডোজ দেওয়া হয়। তিন সপ্তাহের মধ্যে তাদের সবার শরীরে অ্যান্টিবডি তৈরি হয়েছে।