রাণীনগর ও আত্রাই উপজেলায় অসহায় ও দুঃস্থদের পাশে এমপি ইসরাফিল আলম

আব্দুর রশীদ তারেক, নওগাঁ প্রতিনিধি: নওগাঁ-৬ (আত্রাই-রাণীনগর) আসনের সংসদ সদস্য ও জেলা আওয়ামীলীগের যুগ্ম সাধারন সম্পাদক ইসরাফিল আলম বলেছেন এক সময়ের রক্তাক্ত জনপদ নামে খ্যাত রাণীনগর ও আত্রাই উপজেলায় আর কাউকে কখনো রক্তের হুলি খেলতে দেওয়া হবে না। বর্তমান সরকারের সময় এই জনপদে যে শান্তির সুবাতাস বইছে তা আর কেউ নষ্ট করতে পারবেন না।

আমি ইসরাফিল আলম বেঁচে থাকতে আর কোন মায়ের বুক খালি হতে দিবো না। আমি আমার নিজের জীবনের বিনিময়ে এক সময়ের রক্তাক্ত জনপদের এই শান্তির সুবাতাস ধরে রাখবো। মাননীয় প্রধানমন্ত্রী আপনাদের স্বীকৃতি দিয়েছেন।

তিনি আপনাদের দায়িত্ব নিয়েছেন। আর তিনি আপনাদের দায়িত্ব নিয়েছেন বলেই এই সংকটময় সময়ে পবিত্র রমজান মাসে আপনাদেরকে আর্থিক ভাবে সহায়তা করছেন। এছাড়াও বঙ্গবন্ধুর স্বপ্নের আধুনিক বাংলাদেশে কেউ না খেয়ে থাকবে না। করোনা ভাইরাসের এই সংকটময় অনেক মানুষ আছেন যারা চক্ষুলজ্জার কারণে ঘরে খাবার নেই এই কথাটুকু বলতেও পারেন না।

আপনারা সেই সব মানুষদের খবর আমাদের কাছে দিবেন আমরা গোপনে সেই সব মানুষদের ঘরে প্রয়োজনীয় খাবার সামগ্রী পৌছে দিয়ে আসবো তবুও আমরা একটি মানুষকে না খেয়ে থাকতে দিবো না। কারণ আমাদের হাতে পর্যাপ্ত পরিমাণ খাবার সামগ্রী মজুদ আছে। শুধুমাত্র সঠিক তথ্য দিবেন ও করোনা ভাইরাস প্রতিরোধের নিয়মগুলো মেনে চলবেন এবং ঘরের বাহিরে বের হয়ে অযথা কোথাও জটলা করবেন না।

এছাড়াও আশেপাশের কারো খাদ্যের অভাব থাকলে আমাদেরকে জানাবেন প্রয়োজনে আমরা প্রতিটি বাড়িতে গিয়ে খাদ্য সামগ্রী পৌঁছে দেবো। নওগাঁয় আত্মসমর্পণকারীদের মধ্যে প্রধানমন্ত্রী কর্তৃক প্রদত্ত আর্থিক অনুদান বিতরণ অনুষ্ঠান প্রধান অতিথি হিসেবে তিনি এই কথাগুলো বলেন।

সোমবার দুপুরে নওগাঁ জেলা পুলিশের আয়োজনে পুলিশ লাইনস ড্রিল শেডে অনুদান বিতরণ অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব করেন নওগাঁর পুলিশ সুপার প্রকৌশলী আব্দুল মান্নান মিয়া বিপিএম।

অনুষ্ঠানে নওগাঁ জেলার রাণীনগর, আত্রাই ও নওগাঁ সদরের আত্মসমর্পণকারী ৭৩জন কমিউনিস্ট পার্টি (লাল পতাকা) সদস্যদের জনপ্রতি ৫০ হাজার টাকা অনুদান হিসেবে প্রদান করা হয়।

অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি হিসেবে ছিলেন এনএসআই রাজশাহীর যুগ্ম পরিচালক মোহাম্মদ জহির উদ্দিন, জেলা প্রশাসক মোঃ হারুন-অর-রশিদ প্রমুখ।