রাজিবপুরে প্রেসার মাপার অজুহাতে ডাক্তারের বিরুদ্ধে শ্লীলতাহানির অভিযোগ

রফিকুল ইসলাম, রাজিবপুর, কুড়িগ্রাম প্রতিনিধি: প্রেসার মাপার অজুহাতে শ্লীলতাহানির অভিযোগ উঠেছে গ্রাম্য ডাক্তার (ঔষুধ বিক্রেতা) আলমগীর হোসেন (৩৫) এর বিরুদ্ধে।

কুড়িগ্রামের রাজিবপুর উপজেলার কোদালকাটি ইউনিয়নের আনন্দ বাজার নামক স্থানে ৪ ফেব্রুয়ারী বুধবার রাশিদা বেগমকে (২৫) তার স্বামী আমিনুল ইসলাম চিকিৎসার জন্য নিয়ে আসে ঔষুধ বিক্রেতা আলমগীরের নিকট।

স্বামী আমিনুলকে পানি আনার কথা বলে দুরে সরিয়ে প্রেসার মাপার অজুহাতে শ্লীলতাহানি করে ঐ ডাক্তার। কান্না করতে করতে দ্রুত রাশিদা নিজ বাড়ীতে গিয়ে স্বামী আমিনুল ও তার স্বজনদের বিষয়টি খুলে বলে। ঘটনাটি আস্তে আস্তে জানাজানি হলে স্থানীয় সাবেক ইউপি সদস্য আলী হোসেনসহ গ্রামের কতিপয় লোকজন শালিসের মাধ্যমে বুধবার রাতে মিমাংসা করার সিদ্ধান্তর প্রস্তুতি নেয়।

অন্যদিকে আলমগীর তার সহযোগী মালেক, মাইদুল, সামাদ, শাহিদুলদের দিয়ে রাশিদার স্বামীকে বিচারের কথা বলে ডেকে নিয়ে বেদর মারপিট করে গুরুতর আহত করে এবং বিষয়টি গোপন রাখার হুমকি দেয়। পরে আমিনুলের আত্মীয়রা তাকে উদ্ধার করে রাজিবপুর স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করে। পরদিন (৫ ফেব্রম্নয়ারী) এ ঘটনাকে কেন্দ্র করে উভয় পক্ষ রাজিবপুর থানায় লিখিত অভিযোগ করেছে।

এ বিষয়ে জানতে চাইলে রাশিদা জানায়, “তার শরীরে হাত দিছে এবং নানা ধরনের কু-কথা বলছে।” রাশিদার শাশুরি বলেন, “দোষ করছে, আবার ডাইকা নিয়া আমার ছেলেকে মারছে। আমি ঐ ভূয়া ডাক্তারের উচিৎ বিচার চাই।”

অভিযুক্ত আলমগীর ঘটনা অস্বীকার করে বলেন, “আমাকে ফাঁসাতে মিথ্যা মামলা করার জন্য এসব কথা বলেছে।”

বিষটি সম্পর্কে জানতে চাইলে রাজিবপুর থানার এএসআই আব্দুর রউফ জানান, “দুই পক্ষের অভিযোগ পেয়েছি। তদন্ত সাপেক্ষে আইনানুগ ব্যাবস্থা নেয়া হবে।”